kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

ইউএনওর হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্যবিয়ে

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী। গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের দলগাছা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সে ওই গ্রামের হারেজ উদ্দিনের মেয়ে ও ভাটরা খান চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই স্কুলছাত্রীর বিয়ে ঠিক হয় পাশের কল্যাণনগর গ্রামের আরমান আলীর সঙ্গে। সোমবার রাতে কনের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. শারমিন আখতার পুলিশ নিয়ে বিয়েবাড়িতে হাজির হন। নিমেষেই বদলে যায় বিয়েবাড়ির চিত্র। বন্ধ করে দেওয়া হয় বার্যবিয়ে।

এ বিষয়ে ইউএনও মোছা. শারমিন আখতার বলেন, ‘বাল্যবিয়ে হচ্ছে, এমন গোপন খবরে অভিযান চালানো হয়।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা