kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

দুই ভাইস চেয়ারম্যানের ভাতা আত্মসাৎ চেয়ারম্যানের!

নরসিংদী প্রতিনিধি   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দুই ভাইস চেয়ারম্যানের ভাতা আত্মসাৎ চেয়ারম্যানের!

সমসের জামান ভূঁইয়া রিটন। নরসিংদীর বেলাব উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে উপজেলার দুই ভাইস চেয়ারম্যানের সম্মানী ভাতা, ভ্রমণ ভাতা ও আপ্যায়ন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আইনগত সুরাহা চেয়ে চেয়ে ভুক্তভোগী চেয়ারম্যানরা গত ২৭ জানুয়ারি জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে বিষয়টি জানাজানি হয়েছে গতকাল রবিবার।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া জাহাঙ্গীর ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার খালেদা প্রতি মাসের ৩ বা ৪ তারিখে সোনালী ব্যাংকের বেলাব শাখা থেকে নিজেদের সম্মানী ভাতা তোলেন।

গত বছরের নভেম্বর মাসের মাসিক ভাতার ২৭ হাজার টাকা, ভ্রমণ ভাতার আট হাজার টাকা এবং আপ্যায়ন ভাতার চার হাজার ৪২১ (জাহাঙ্গীর) ও চার হাজার ৩৬৬ টাকার (খালেদা) চেক অফিস সহকারী তৌফিক আফ্রাদের কাছে চাইলে তিনি জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান পুরো চেক বই তাঁর কাছ থেকে নিজের হেফাজতে নিয়ে গেছেন।

বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি পরে কথা বলবেন বলে জানান।

কিন্তু পরে আর এ বিষয়ে কোনো কথা না বলায় তাঁরা ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন চেয়ারম্যান গত ৪ ডিসেম্বর সকালে তাঁদের টাকা তুলে ফেলেছেন।

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) জানালে তিনিও চেয়ারম্যানকে দ্রুত সুরাহা করার অনুরোধ করেন। কিন্তু দীর্ঘ দুই মাস পেরিয়ে গেলেও বিষয়টির কোনো সুরাহা হয়নি। তাই দ্রুত আইনগত সুরাহা চেয়ে খালেদার প্যাডে তিনিসহ জাহাঙ্গীর স্বাক্ষর করে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। যার অনুলিপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব ও বিভাগীয় কমিশনারের কাছে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর বলেন, ‘বাধ্য হয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দিয়েছি।’

সোনালী ব্যাংকের বেলাব শাখার ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘চেয়ারম্যান সাহেব ভাইস চেয়ারম্যানদের না জানিয়ে টাকাটা তুলে ফেলেছেন। বিষয়টি দুঃখজনক। তাই ভাইস চেয়ারম্যানরা যখন আমার কাছে এসেছিলেন, তখনই তাঁদের নিজেদের নামে আলাদা আলাদা হিসাব খুলে দিয়েছি। এখন তাঁদের হিসাবে টাকা জমা হবে।’

তবে অভিযুক্ত উপজেলা চেয়ারম্যান সমসের জামান বলেন, ‘তাঁরা (দুই ভাইস চেয়ারম্যান) জেলা

প্রশাসকের কাছে যেহেতু অভিযোগ দিয়েছেন, তখন নিশ্চয়ই এর তদন্ত হবে। এ ব্যাপারে আমি কোনো মন্তব্য করব না।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা