kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

কুলাউড়া

ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় বাড়ছে নিউমোনিয়া, ঠাণ্ডা জ্বর ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত এক সপ্তাহে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে শতাধিক শিশু। ছবি : কালের কণ্ঠ

তীব্র শীত ও ঠাণ্ডাজনিত কারণে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় বাড়ছে নিউমোনিয়া, ঠাণ্ডা জ্বর ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত এক সপ্তাহে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে শতাধিক শিশু। এর মধ্যে অনেকেই চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে গেছে। আতঙ্কিত না হয়ে শিশুর বাড়তি যত্ন নেওয়ার পাশাপাশি প্রতিরোধের পরার্মশ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। রোগের প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে রাখতে ৫০ শয্যা কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথমবারের মতো চার সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে।

কুলাউড়া হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত তিন মাসে কুলাউড়ায় ঠাণ্ডাজনিত কারণে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ২৩৪ জন এবং ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ৬৭৮ জন। গত বছরের নভেম্বর মাসে নিউমোনিয়ায় ৭৭ জন ও ডায়রিয়ায় ২৫৪ জন, ডিসেম্বরে নিউমোনিয়ায় ৮৭ জন ও ডায়রিয়ায় ২৩২ জন, চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত নিউমোনিয়ায় ৭০ জন ও ডায়রিয়ায় ১৯২ জন আক্রান্ত হয়েছে। ২৭ জানুয়ারি পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১১ জন নিউমোনিয়া রোগী ও ২০ জন ডায়রিয়া রোগী।

গতকাল সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ডে বিভিন্ন বয়সী নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়া রোগীর চিকিৎসা চলছে। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশু শাকিলকে ‘নেবুলাইজার’ দিচ্ছেন তার মা স্বপ্না বেগম। তিনি উপজেলার বরমচাল ইউনিয়নের পশ্চিম সিঙ্গুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জানালেন, গত পাঁচ দিন থেকে তিন বছর বয়সী ছেলে শাকিলকে ভর্তি করেছেন কুলাউড়া হাসপাতালে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ নুরুল হক বলেন, ‘ঠাণ্ডা বেড়ে যাওয়ায় প্রতিদিন রোগীর সংখ্যাও বেড়ে চলছে হাসপাতালে। তাই শুধু শীতকালীন দ্রুত সেবাদানের জন্য এই মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের মাধ্যমেও সার্বক্ষণিক খোঁঁজ রাখা হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা