kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

যশোরে ছড়িয়ে পড়েছে গাঁজা

অভিযানে পুলিশ

বিশেষ প্রতিনিধি, যশোর    

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের শহর থেকে গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে গাঁজা। শুধু তাই নয়, চাহিদার পাশাপাশি বেড়েছে গাঁজার দামও। প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকেও গাঁজা আসছে বলে অভিযোগ। সব মিলিয়ে গাঁজার বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযানে নেমেছে পুলিশ। গত কয়েক দিনে আলাদা পাঁচটি অভিযানে ১৩ কেজি গাঁজা জব্দসহ আট কারবারিকে আটক করেছে তারা। 

জানা যায়, ভারত থেকে পাচার করে আনার সময় যশোর শহরতলির চাঁচড়া এলাকা থেকে গত ১৩ জানুয়ারি পুলিশ আট কেজি গাঁজাসহ বেনাপোলের দুই চোরাকারবারি ইফতিয়ার মণ্ডল ও সাইফুল ইসলামকে আটক করে। অন্যদিকে বাগডাঙ্গা থেকে দুই কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয় মাদক কারবারি বিপুলকে। এ ছাড়া দুই কেজি গাঁজাসহ রামনগরের গৃহবধূ পারভিনা খাতুন ও বলরামপুরের গৃহবধূ সাবিনা বেগমকে আটক করা হয়েছে। 

গত ১৫ জানুয়ারি পুলিশ এক কেজি এক শ গ্রাম গাঁজাসহ বিরামপুর ও উপশহর এলাকা থেকে দুই মাদক কারবারি সন্তোষ ও করিমকে আটক করে। সদর উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামে বিকেল হলেই গাঁজা বিক্রেতারা তৎপর হয়ে ওঠেন বলে অভিযোগ। তাঁরা এক পুরিয়া গাঁজা ১০০ টাকায় বিক্রি করেন। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন সময় সন্দেহভাজনদের ধরে তাদের সিগারেট ভেঙে গন্ধ শুঁকে গাঁজার ব্যাপারে নিশ্চিত হয়।

আরো জানা যায়, গত শুক্রবার যশোর শহরের পুরাতন কসবায় প্রাইভেট কার দুর্ঘটনায় দুই বোন তনিমা ইয়াসমিন পিয়াসা ও তানজিলা ইয়াসমিন এবং তাঁদের খালাতো ভাবি আফরোজা তাবাসসুম তিথী নিহত হন। এ ঘটনায় আহত পিয়াসার স্বামী শফিকুল ইসলাম জ্যোতি গাড়িটি চালাচ্ছিলেন। পুলিশ তাঁকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে হাসপাতালে পরীক্ষার পর পুলিশ জানতে পারে তিনি গাঁজা সেবন করেছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সম্প্রতি পার্বত্য এলাকায় দুই শ বিঘা গাঁজা ক্ষেতের সন্ধান পেয়ে তা ধ্বংস করেছেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। অন্যদিকে ভারতের মুর্শিদাবাদসহ আরো কয়েকটি স্থানে গাঁজা চাষ হচ্ছে বলে জানা গেছে। এসব এলাকার গাঁজা সীমান্ত পার হয়ে এ দেশে ঢুকছে। 

যশোর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুশিল সুপার তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘গাঁজা জব্দ করতে পুলিশ বিশেষ অভিযান শুরু করেছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা