kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

শিশুকে বেঁধে উল্টো ঝুলিয়ে মার

গাইবান্ধা ও সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিশুকে বেঁধে উল্টো ঝুলিয়ে মার

ছবি : সংগৃহীত

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে গরু চুরির অপবাদে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুলিয়ে এক শিশুকে (১৩) নির্যাতন করা হয়েছে। রাতে ঘুমন্ত শিশুকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এ নির্যাতন চালানো হয়।

ঘটনাটি গত শনিবারের হলেও এর একটি ভিডিও গত রবিবার রাতে ছড়িয়ে পড়ে। শিশুটির স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার কথা রয়েছে।

স্বজনদের অভিযোগ, প্রতিবেশী ফজলু, ইয়াজল ও নাজমুলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে পারবারিক বিরোধ চলছে তাদের। গরু চুরির মিথ্যা অভিযোগে গত শুক্রবার রাতে ঘুম থেকে শিশুটিকে ডেকে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে প্রভাবশালীরা। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য ১০ হাজার টাকা দাবি করে তারা। তাত্ক্ষণিক তিন হাজার টাকা দেয় তার পরিবারের লোকজন। কিন্তু তাতে সন্তুষ্ট না হয়ে রাতভর আটক রেখে মারধর করা হয়। পরদিন সকালে গ্রামের শত শত নারী-পুরুষের সামনে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুঁলিয়ে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে ফজলু, ইয়াজল ও নাজমুল।

শিশুটির বড় ভাই বলেন, ‘গ্রামের সবার সামনে নির্যাতন চালালেও কেউ এগিয়ে আসেনি। ভাই একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পর নির্যাতনকারীরা ভয়ভীতি ও হুমকি দেওয়ায় মুখ খুলতে এবং অভিযোগ করতে সাহস পাইনি। মোবাইলে ধারণ করা ভিডিও দেখে বিষয়টি পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানাই।’

এ বিষয়ে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা শুধাংশু বলেন, ‘শিশুটির দুই পা-হাত ও শরীরের বিভিন্ন জায়গা জখম হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয়

চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।’

এদিকে ঘটনার পর গাঢাকা দিয়েছে অভিযুক্তরা। এ বিষয়ে অভিযুক্তদের পরিবারের কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি। তবে এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে রাতেই অভিযান চালিয়ে দুই অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশ। এরই মধ্যে শিশুটির বড় ভাই বাদী হয়ে ১৩ জনকে আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেছেন। আটকরা হলেন ধুমাইটারী গ্রামের বাবলু মিয়ার ছেলে রানা (৩০) ও আব্বাস আলীর ছেলে আইজুল হক (৫০)। তাঁদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

সুন্দরগঞ্জ থানার পরিদর্শক আব্দুল্লাহিল জামান বলেন, ‘ভিডিও দেখে ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরেছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা