kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

স্কুলে যায় না ১৭ দিন

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুলে যায় না ১৭ দিন

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরের দশম শ্রেণির সেই ছাত্রীর (১৬) চোখের ব্যথায় পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে। সে ১৭ দিন ধরে বিদ্যালয়ে যাচ্ছে না। টাকার অভাবে চিকিৎসাও নিতে পারছে না।

থানা-পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, হিন্দু ধর্মাবলম্বী গরিব পরিবারের মেয়েটি গত ১৮ ডিসেম্বর নির্যাতিত হয়। সোনামুখী গ্রামের ফকিরপাড়ার মৃত খোকা ফকিরের ছেলে নাজিম উদ্দিন ওরফে বাবুল ফকির (৩৬) যৌন নির্যাতনে ব্যর্থ হয়ে চোখে কিল-ঘুষি মারে। এ ঘটনা নিয়ে কালের কণ্ঠে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। পরে মেয়েটি নাজিম ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য সিরাজুল ইসলামকে আসামি করে থানায় মামলা করে।

মেয়েটির এক প্রতিবেশী বলেন, ‘ওই দিন সকালে মেয়েটি চিৎকার দিতে দিতে নদী পার হয়ে সড়কে আমার কাছে এসেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। জ্ঞান ফেরার পর আমরা ঘটনা জানতে পারি।’

আরেক প্রতিবেশী বলেন, ‘ঘটনার দিন মেয়েটির দুই চোখ কিছুটা লাল ছিল। সকালে দেখি, দুই চোখ ফুলে রক্ত জমে গেছে। মেয়েটি এখন তেমন দেখতে পাচ্ছে না। শুধু ব্যথায় কাঁদছে। তাঁর চিকিৎসার প্রয়োজন।’

আরেক প্রতিবেশী বলেন, ‘মেয়েটির বাবা রিকশা চালিয়ে সংসার চালান। টাকার অভাবে চোখের চিকিৎসা হচ্ছে না। তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন।’

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মুনমুন বলেন, ‘ঘটনার পরে মেয়েটি বিদ্যালয়ে সাহায্যের আবেদন করেছিল। আমিসহ অন্য শিক্ষকরা তার বাড়িতে গিয়ে কিছু টাকা দিয়ে এসেছি। ঘটনার পরে মেয়েটি চোখের কারণে আর বিদ্যালয়ে আসতে পারছে না।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় ব্যক্তি অভিযোগ করেন, একজন আসামি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করছে না।

মেয়েটির বাবা বলেন, ‘অভাবে মেয়ের চোখের চিকিৎসা করতে পারছি না।’

আক্কেলপুর থানার পরিদর্শক (ওসি) আবু ওবায়েদ বলেন, ‘আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। প্রকাশ্যে আসামি ঘুরে বেড়ানোর কথা আমার জানা নেই।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা