kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পালিত হয়নি তানোর মুক্ত দিবস

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৩ ডিসেম্বর ছিল তানোর মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে রাজশাহীর তানোরকে পাকিস্তানি হানাদার ও রাজাকারমুক্ত হিসেবে ঘোষণা করা হয়। কিন্তু রাজনৈতিক ব্যক্তিদের মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি উদাসীনতা ও অর্থের অভাবে এ বছর যথাযথ মর্যাদায় দিবসটি পালিত হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

তানোর থানা মুক্তিযোদ্ধার সাবেক কমান্ডার আব্দুল ওহাব শেখ বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর শোষণ থেকে মুক্তি পেতে জীবন বাজি রেখে দেশ স্বাধীন করেছি। আজ আমরা অবহেলিত। দুঃখের সঙ্গে বলতে হয় বর্তমান সরকার স্বাধীনতার পক্ষের সরকার, এর পরেও রাজনৈতিক নেতারা আমাদের খবর নেয় না। তানোরে মুক্তিযোদ্ধাদের কোনো কমিটি নেই। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধাদের কমান্ডার। তিনিও দিবসটি নিয়ে কোনো ভূমিকা রাখেনি।’ মুক্তিযোদ্ধা আসাদ বলেন, ‘মূলত অর্থের অভাবে দিবসটি আমরা পালন করতে পারছি না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এমপি মহাদয়ও এ ব্যাপারে আমাদের কোনো সাহায্য করেনি।’

তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন বাবু বলেন, ‘আগের মুক্তিযোদ্ধাদের কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। আমার আগের ইউএনও ভারপ্রাপ্ত হিসেবে কমান্ডারের দায়িত্বে ছিলেন। এখন আমি আছি। ১৩ ডিসেম্বর তানোর মুক্ত দিবস এ বিষয়ে আমার জানা ছিল না। আমার সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধারা দিবসটি পালনের বিষয়ে কোনো যোগাযোগ করেননি।’ তানোর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান লুত্ফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে। তাঁদের অবহেলা করা হয়—এমন কাজ করা উচিত নয়।’

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা