kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

বদরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধ

রাস্তা কেটে পুকুর বিপদে ১০ গ্রাম

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাস্তা কেটে পুকুর বিপদে ১০ গ্রাম

রংপুরের বদরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের সাতঘরিয়াপাড়ায় শত বছরের পুরনো একমাত্র রাস্তা কেটে পুকুর খনন করা হয়েছে। ছবিটি গতকাল তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

রংপুরের বদরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে মানুষের চলাচলের পুরনো একমাত্র রাস্তা কেটে ফেলা হয়েছে। তাতে অন্তত ১০ গ্রামের মানুষ চলাচলে ভোগান্তির মুখে পড়েছে। এ ঘটনায় গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের সাতঘরিয়াপাড়ায়।

জানা গেছে, সাধারণ মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তার মালিক দাবি করে গত বুধবার সন্ধ্যায় অন্তত ৫০ ফুট জায়গার এক পাশ কেটে পুকুরে পরিণত করেন তোজাম্মেল হোসেন ও খায়রুল ইসলাম। এমনিতেই

দুই পাশে পুকুর থাকায় রাস্তাটি ভেঙে চিকন হয়ে

যায়। এ কারণে রামনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে রাস্তা সংস্কারের জন্য এক লাখ ৪৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়।

গত বুধবার ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম লোকবল নিয়ে ওই রাস্তা সংস্কারের জন্য গেলে তাঁকে অপমান করার পাশাপাশি কাজে বাধা দেওয়া হয়। পরে সন্ধ্যায় তোজাম্মেল হোসেন ও তাঁর আত্মীয় খায়রুল ইসলাম মাস্টার লোকজন নিয়ে অন্তত ৫০ ফুট রাস্তার এক পাশ কেটে ফেলেন। এ নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গিয়ে রাস্তা কাটার কারণ জানতে চাইলে তাঁকেও অপমান করা হয়।

অভিযুক্ত তোজাম্মেল হোসেন বলেন, ‘সরকারি সীমানায় ইউনিয়ন পরিষদের অর্থে গাইড ওয়াল না দিয়ে আমাদের জমির ওপর রাস্তা নির্মাণ করতে দেব না। আগে ওই রাস্তা দিয়ে লোকজন যাতায়াত করলেও এখন আমাদের পৈতৃক সীমানায় থাকা রাস্তার মাটি কেটে নিয়েছি।’

পাশের ফয়জার রহমানের অন্য একটি পুকুর ভরাট করে রাস্তা নির্মাণের দাবি করেন তিনি।

এলাকার প্রবীণ ব্যক্তি আব্দুল আজিজ বলেন, ‘যুগ যুগ ধরে আমাদের বাপ-দাদারাও ওই রাস্তা দিয়ে এত দিন চলাচল করেছে। কেউ কোনো দিন বাধা দেয়নি। এখন হঠাৎ তোজাম্মেল লোকজন নিয়ে রাস্তা কেটে দিয়েছে।’

রামনাথপুর ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম বলেন, শত বছরের আগের চলাচলের রাস্তা নিজেদের দাবি করে স্থানীয় খায়রুল মাস্টার ও তোজাম্মেল গায়ের জোরে রাস্তা কেটে দেয়। তাতে মানুষজন রিকশাভ্যান নিয়েও যাতায়াত করতে পারছে না। তারা আইনের কোনো তোয়াক্কাই করছে না।

ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, নিজেদের জমি দাবি করে একটি পক্ষ অন্যায়ভাবে

রাস্তা কেটে নিয়েছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা