kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

অদক্ষ চালকের হাতে স্টিয়ারিং

কমলগঞ্জের বিভিন্ন সড়কে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা

মোস্তাফিজুর রহমান, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার)   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সব কয়টি ছোট-বড় সড়কে লাইসেন্সবিহীন অদক্ষ ও কিশোর চালকরা বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালাচ্ছে। অদক্ষ ও লাইসেন্সবিহীন চালকের কারণে প্রতিনিয়ত বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা। গত এক মাসে কমলগঞ্জে বিভিন্ন সড়কে অন্তত ১৫টি ছোট-বড় সিএনজি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে ১৮-২০ জন।

জানা গেছে, বেশির ভাগ সিএনজি অটোরিকশার চালক আগে ছিল রিকশাচালক। তাদের বেশির ভাগেরই লাইসেন্স ও গাড়ির কাগজপত্র নেই। নেই কোনো প্রশিক্ষণও। এর ফলে সড়কে দিন দিন দুর্ঘটনার সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলায় ছোট-বড় ১৫টি প্রধান সড়ক রয়েছে। আর এসব সড়ককে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে অবৈধ সিএনজিস্ট্যান্ড। উপজেলার ১৬টি স্ট্যান্ডের আওতায় প্রায় দুই হাজার সিএনজি অটোরিকশা চলাচল করছে। কোনো নিয়ম-কানুন ছাড়া বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাচ্ছে চালকরা। এসব গাড়ির বেশির ভাগ চালক কিশোর। তাদের হেলপাররাও শিশু। স্থানীয় প্রশাসন এবং সড়ক নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাকে ম্যানেজ করেই এসব চালক সড়কে যানবাহন নামিয়েছে। এতে প্রতিনিয়তই দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ঘটছে প্রাণহানির মতো ঘটনা। তাদের নিয়ন্ত্রণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তেমন অভিযান চোখে পড়ে না। ফলে দিন দিন আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে তারা।

উপজেলা সিএনজি অটোরিকশা পরিবহন মালিক সমিতির একটি সূত্র জানায়, উপজেলার অভ্যন্তরে চলাচলকারী সিএনজিচালকদের মধ্যে প্রায় ৯৫ শতাংশ চালকের লাইসেন্স নেই। বাকি ৫ শতাংশ চালকের বৈধ লাইসেন্স রয়েছে। বিভিন্ন সড়কে প্রায় দুই হাজার সিএনজি চলাচল করছে। সিএনজি যাত্রী আবুল কাসেম বলেন, ‘আমরা নিরুপায় হয়ে সিএনজিতে যাতায়াত করি।’

কমলগঞ্জ উপজেলা অটোরিকশা সিএনজিচালক সমিতির সভাপতি আলমাছ মিয়া বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি, চালকদের লাইসেন্সের ব্যবস্থা করে দিতে। কিছু সিএনজি মালিক অদক্ষ চালকের হাতে সিএনজি তুলে দেয়। তা বন্ধের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ২০ বছর বয়সের কম কোনো চালকের হাতে সিএনজি দেওয়া যাবে না।’

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনার ব্যাপারে চালকদের সচেতন করতে সভা করা হচ্ছে। আর অদক্ষ চালকদের ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য