kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

১৮ বছর পর সন্ধান

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৮ বছর পর সন্ধান

মাত্র পাঁচ বছর বয়সে হারিয়ে গিয়েছিলেন গাইবান্ধা সরকারি শিশু পরিবারের (বালক) অফিস সহকারী হাসি আক্তার। তখন থেকেই মাকে খুঁজছিলেন তিনি। দীর্ঘ ১৮ বছর পর মাকে পেয়ে হাসি ফুটেছে তাঁর মুখে। কালের কণ্ঠ শুভসংঘের রাজবাড়ী শাখার সদস্যদের কল্যাণে শুধু মা-ই নয়, পুরো পরিবারকে খুঁজে পেয়েছেন তিনি। পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে স্বামীকে নিয়ে কাল শনিবার রাজবাড়ীতে আসবেন তিনি।

মোবাইল ফোনে হাসি জানান, তাঁর দাদার বাড়ি রাজশাহীতে। কিন্তু মা-বাবার সঙ্গে রাজবাড়ীতে নানার বাড়িতে থাকতেন তিনি। পাঁচ বছর বয়সে দাদার বাড়িতে যাওয়ার জন্য দাদির সঙ্গে খানখানাপুর রেলস্টেশন থেকে রাজশাহীগামী ট্রেনে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু ঘুম ভেঙে দেখেন পাশে দাদি নেই। একপর্যায়ে কয়েকজন হৃদয়বান ব্যক্তি তাঁকে রাজশাহীর সরকারি ছোটমণি নিবাসে পৌঁছে দেন। এখানেই ১৮ বছর কাটে তাঁর। এর মধ্যে গত ১৮ অক্টোবর নাটোরের নলডাঙ্গার চৌখালী গ্রামের যুবক রায়হান হাসান তুষারের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। পরে স্বামীর কাছে সব খুলে বলেন তিনি।

গত ১৫ দিন আগে তুষার এ প্রতিনিধির সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেন। সেই সঙ্গে হাসির দুটি ছবিও পাঠান। পরে কালের কণ্ঠ শুভসংঘের রাজবাড়ী শাখার সদস্যরা হাসির ছবিসহ নানা ও মামাদের নাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে দেন। পরে রাজবাড়ী সদরের খানখানাপুর ইউনিয়নের মল্লিকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ও রাজবাড়ী শহরের গৃহবধূ পারভীন বেগমের মাধ্যমে গত বুধবার দুপুরে মল্লিকপাড়ায় হাসির নানার বাড়ির খোঁজ মেলে। সেখানে ডেকে আনা হয় হাসির মা খাদিজা বেগমকে। মোবাইল ফোনে কথা বলিয়ে দেওয়া হয় মেয়ের সঙ্গে।

মন্তব্য