kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

শিবগঞ্জে মাছমেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিবগঞ্জে মাছমেলা

নবান্ন উৎসব উপলক্ষে গতকাল বগুড়ার শিবগঞ্জের উথলিতে অনুষ্ঠিত মাছের মেলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

বগুড়ার শিবগঞ্জের উথলীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের নবান্ন উৎসব উপলক্ষে গতকাল বসেছিল মাছমেলা। মেলায় মাছ কেনাবেচা হয়েছে ঢের। দেড় কেজি থেকে শুরু করে ২০ কেজি ওজনের বাঘাইড়, বোয়াল, রুই, কাতলা, চিতল, সিলভার কার্প, বিগহেডসহ হরেক রকমের মাছ উঠেছে। তবে দাম ছিল বেশি। অনেক ক্রেতা অতিরিক্ত দামের কারণে পছন্দের মাছ কিনতে পারেননি।

বিশাল আকৃতির বাঘাইড়, বোয়াল, রুই, কাতলা ও চিতল মাছ এক হাজার থেকে এক হাজার ৬০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়। তবে মাঝারি আকারের মাছ ৩০০ টাকা থেকে ৬৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। এ ছাড়া ২০০ থেকে ৪৫০ টাকা দরে বিগহেড ও সিলভার কার্প মাছ বেচাকেনা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, ২০০ বছরের প্রাচীন উথলী মাছমেলাকে কেন্দ্র করে আশপাশের ২০ গ্রামে স্বজনদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। গ্রামের লোকজন তাদের আত্মীয়-স্বজনকে দূর-দূরান্ত থেকে দাওয়াত দিয়ে নিয়ে আসে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পঞ্জিকা অনুসারে সোমবার পহেলা অগ্রহায়ণ হওয়ায় এদিন নবান্ন উৎসব পালন করে তারা। এ উৎসবকে কেন্দ্র করেই প্রতিবছর মাছমেলা বসে উথলীতে।

তবে এটি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উৎসব হলেও উথলী, রথবাড়ী, ছোট ও বড় নারায়ণপুর, ধোন্দাকোলা, সাদুল্যাপুর, বেড়াবালা, আকনপাড়া, গরীবপুর, দেবীপুর, গুজিয়া, মেদেনীপাড়া, বাকশন, গণেশপুর, রহবল, শিবগঞ্জসহ আশপাশের ২০ গ্রামের মানুষের ঘরে ঘরে চলে উৎসবের আয়োজন। প্রতিটি বাড়িতেই মেয়ে, জামাইসহ আত্মীয়-স্বজনকে আগে থেকেই নিমন্ত্রণ করা হয়। পরিবারের সবাইকে নিয়ে নতুন ধানের নবান্ন উৎসবে মেতে ওঠে তারা।

উথলী বহুমুখী মৎস্য আড়তের স্বত্বাধিকারী ফজলুল বারী জানান, এবার মাছের আমদানি কম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা