kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ

পরিবর্তনের আশায় নেতারা

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থীর বড় পরাজয়ের পর থেকে এ উপজেলায় দল দুই ভাগে বিভক্ত। এক পক্ষের নেতৃত্বে আছেন জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুস সালাম আকন্দ। আরেক পক্ষে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী মণ্ডল।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে থাকা মোকছেদ আলী মণ্ডল ও গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসরের জায়গায় নতুন নেতৃত্ব চান দলের নেতাকর্মীরা। নতুন পদপ্রত্যাশীরা বলছেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক হলে ত্যাগী নেতাদের প্রাধান্য দিয়ে নবীন-প্রবীণদের সমন্বয়ে সৎ ও নির্ভীক নেতাদের নিয়ে দল এগিয়ে নেবেন তাঁরা।

আগামী কাউন্সিল সামনে রেখে দলের সভাপতি পদে যাঁদের নাম শোনা যাচ্ছে তাঁরা হলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম আকন্দ ও তাঁর ছোট ভাই এনায়েতুর রহমান আকন্দ স্বপন। সাধারণ সম্পাদক পদে শোনা যাচ্ছে জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির ও যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম বাবলুর নাম। জানা গেছে, ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে দলের ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে আছেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সারোয়ার হোসেন বলেন, দলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী ছাড়া এখানে সংগঠন চলবে না। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে আক্কেলপুরে আওয়ামী লীগ চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। এখানে আওয়ামী লীগের হাল ধরার মতো তাঁর বিকল্প কেউ নেই। তবে সভাপতি মোকছেদ আলী মণ্ডলকে পরিবর্তন করতে হবে। তাঁকে দিয়ে আর হবে না।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সোলায়মান আলী বলেন, এরই মধ্যে ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে উপজেলা ও জেলা কমিটি গঠন করা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা