kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

দুবলার চরে জিম্মিদশা থেকে ১০ জনকে উদ্ধার

মোংলা (বাগেরহাট) ও শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুন্দরবনের দুবলার চরের জিম্মিদশা থেকে গতকাল ১০ ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড। এ সময় অপহরণকারী চক্রের লেদু মিয়া নামের এক সদস্যকেও আটক করা হয়েছে। কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের নির্বাহী কর্মকর্তা লে. কমান্ডার ইফতেখার হোসেন জানান, সিলেট, কিশোরগঞ্জ, নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে তাঁদের অপহরণ করা হয়। এরপর তাঁদের নিয়ে আসা হয় সুন্দরবনের দুবলার চরে। সেখানে তাঁদের জোর করে শুটকি আহরণকাজে নিয়োজিত করা হয়। কাজ করতে না চাইলে তাঁদের শারীরিক নির্যাতন করা হতো। খবর পেয়ে শনিবার ভোরে অভিযান চালিয়ে অপহরণকারীচক্রের সদস্য লেদু মিয়াকে আটক করা হয়। পরে তাঁর স্বীকারোক্তি অনুসারে ১০ জনকে উদ্ধার করা হয় দুবলার চরের এক বহদ্দারের ঘর থেকে।

উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন কিশোরগঞ্জের রেনু মিয়া ও টুটুল, চাঁদপুরের মানিক মিয়া, ময়মনসিংয়ের হৃদয় খান ও রিমন, হবিগঞ্জের আক্তার হোসেন, নোয়াখালীর আলামিন ও হোসেন, চট্টগ্রামের আমির ও কুষ্টিয়ার পারভেজ।

এদিকে বন বিভাগ সাতক্ষীরা রেঞ্জের কর্মকর্তারা পশ্চিম সুন্দরবনের গহিনে অভয়ারণ্য এলাকায় মাছ ধরার অভিযোগে ১৪ জেলেকে আটক করেছেন। গতকাল শনিবার ভোরে সুন্দরবন পুষ্পকাটি বন অফিসসংলগ্ন মান্দারবাড়িয়ার খাল থেকে তাঁদের আটক করা হয়। আটক জেলেরা হলেন বাগেরহাটে রামপাল থানার দাকড়া গ্রামের হাফিজুর শেখ, মোজাফফার, ওবায়দুল্যাহ, ইয়াছিন সরদার, ইছা মল্লিক, আক্তার আলী, ফয়সাল, একই থানার শ্রীফল গ্রামের ইলিয়াস, মিসকাত, আবু হেরা, আক্তার আলী, অহিদ আলী ও ঝনঝনিয়া গ্রামের বাদল ও জাবের শেখের ছেলে আলী শেখ।

সাতক্ষীরা সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) এম এ হাসান বলেন, সুন্দরবনের পরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখতে বন বিভাগের টহল অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা