kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিদ্যুৎস্পর্শে শিশুসহ চারজনের মৃত্যু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বরগুনার পাথরঘাটায় সুপারি পাড়তে গিয়ে ১১ বছরের মো. পারভেজ নামে এক শিশুর বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যু হয়েছে। পারভেজ পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের পশ্চিম বাদুড়তলা গ্রামের মো. আব্দুল বারেকের ছেলে। গতকাল শনিবার সকাল ৭টার দিকে পারভেজের বাড়ির পার্শ্ববর্তী শাহিন মিয়া তাকে সুপারি পাড়ার জন্য নিয়ে গেলে গাছে ওঠার পর বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে মাটিতে পড়ে যায়। গুরুতর আহত পারভেজকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চরফ্যাশন পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড উদয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মারুফের (৩২) বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার জুমার নামাজ আদায়ের জন্য দ্রুত গোসল করে বিদ্যুতের তারের ওপর কাপড় রোদে দিতে গেলে মারুফ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে চরফ্যাশন হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।    

অন্যদিকে শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মো. হাসেম আকন নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার সকাল ১০টার দিকে গোসাইরহাটের চরমনপুরা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মো. হাসেম আকন (৫৫) নলমুড়ি ইউনিয়নের চরমনপুরা গ্রমের মৃত আরব আলী আকনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, নিহত হাসেম আকন বাড়ির খড়ের গাদা থেকে গরুকে খাওয়ানোর জন্য খড় আনতে গেলে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে টানা তারে লেগে তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

এদিকে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট মাকে বাঁচাতে গিয়ে সিনহা আক্তার (৭) নামে দ্বিতীয় শ্রেণির এক শিক্ষার্থী মারা গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার লংগাইর গ্রামে। নিহত সিনহা আক্তার লংগাইর গ্রামের সোহেল মিয়ার মেয়ে এবং লংগাইর বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মাগরিবের নামাজের পর উপজেলার লংগাইর গ্রামের সোহেল মিয়ার স্ত্রী সুফিয়া খাতুন বসতঘরের বিদ্যুতের সুইচে হাত রাখলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এ সময় মেয়ে সিনহা আক্তার মাকে বাঁচানোর জন্য ধরতে যায়। এতে সুফিয়া আক্তার প্রাণে বেঁচে গেলেও সিনহা গুরুতর আহত হয়। পরে শিশুটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সময় মারা যায়।

এ বিষয়ে পাগলা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহিনুজ্জামান খান বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছি। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পাথরঘাটা (বরগুনা), চরফ্যাশন (ভোলা), ডামুড্যা (শরীয়তপুর) ও গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা