kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ জানুয়ারি ২০২০। ৯ মাঘ ১৪২৬। ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১          

কাটা হচ্ছে উঁচু টিলা

কমলগঞ্জে মাটিধসে নারীর মৃত্যু

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে পাহাড়ি উঁচু টিলা কেটে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে। এভাবে টিলা কাটার সময় মাটি ধসে আমেনা বেগম (৫০) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত আমেনা বেগম ওই গ্রামের কৃষক মাসুক মিয়ার স্ত্রী। তাঁদের ছয় সন্তান রয়েছে। গত বুধবার বিকেলে আহত হলে হাসপাতালে নেওয়ার পর রাতে তাঁর মৃত্যু হয়।

জানা যায়, উপজেলা সদর ইউনিয়নের বাদে উবাহাটা গ্রামের মাসুক মিয়া একটি উঁচু টিলা কেটে বাড়ির উঠান ভরাট করছিলেন। টিলার পাঁচ ফুট উচ্চতার অবশিষ্ট অংশে গত বুধবার বিকেলে শিশুরা খেলাধুলা করছিল। এ সময় শিশুদের সরিয়ে আনতে গেলে মাটিধসে পড়ে আমেনা বেগম গুরুতর আহত হন। পরে তাঁকে দ্রুত কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর সেখান থেকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে রাত ৮টার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়।

এদিকে সরেজমিনে ওই এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বাদে উবাহাটা গ্রামের একটি উঁচু টিলা কেটে একটি বাড়ি তৈরি করা হচ্ছে। কেটে ফেলা টিলার ওপর পাকা দেয়ালের ঘরের কাজ চলছে। আশপাশ এলাকায় টিলা কেটে সাবাড় করা হচ্ছে। মোহাম্মদ আলী ও শাহিন মিয়া নামের দুই ব্যক্তি ঘর তৈরি করছেন। তবে ব্যক্তিগত টিলা হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই তা কাটা হচ্ছে বলে স্থানীয় লোকজন জানায়। কমলগঞ্জ উপজেলার পাহাড়ি টিলা অধ্যুষিত দুর্গম এলাকায় এভাবে অসংখ্য স্থানে অবৈধভাবে টিলা কেটে সাবাড় করা হচ্ছে। ফলে পরিবেশ-প্রতিবেশের বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। টিলা কাটার ফলে মাটিধসে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কালাম বলেন, তাঁদের ব্যক্তিগত টিলার কাটা অংশের মাটিধসে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে কারো কোনো অভিযোগ নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা