kalerkantho

রবিবার । ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৭ রবিউস সানি                    

জমি নিয়ে বিরোধ

মিঠাপুকুরে রাস্তা কেটে নিল এক পক্ষ

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর   

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রংপুরের মিঠাপুকুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুই গ্রামের মানুষের চলাচলের জন্য একমাত্র রাস্তার প্রায় ৫০ মিটার জায়গা রাতের আঁধারে কেটে ফেলা হয়। তাতে স্থানীয় অর্ধশতাধিক পরিবারের কয়েক শ মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার ইমাদপুর ইউনিয়নের ফরিদপুর আকন্দপাড়ায়। এ ঘটনায় দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, প্রায় এক বছর আগে ওই গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে আব্দুল কাইয়ুমের কাছ থেকে ১৭ শতাংশ জমি কেনেন একই গ্রামের এন্তাজ মণ্ডলের ছেলে জাকারিয়া মণ্ডল। পরে ওয়ারিশ দাবি করে জমি ক্রয়ের সমুদয় টাকা দাখিল করেন কাইয়ুমের চাচাতো ভাই আব্দুল মালেক। তিনি একই গ্রামের সমসের আলীর ছেলে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা বিচারাধীন। এই অবস্থায় ওই জমিতে মাছ চাষ করে আসছেন জাকারিয়া। আর রাস্তাটি জনগুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় তা মাটি ভরাট করে আরো প্রশস্ত করেন তিনি।

কিন্তু গত ১ নভেম্বর রাতের আঁধারে একদল লোক নিয়ে রাস্তাটির প্রায় ৫০ মিটার জায়গা কেটে ফেলেন আব্দুল মালেক। এমনকি সেই রাস্তার মাঝে টয়লেট ও একটি স্থাপনা তৈরি করেন তিনি। তাতে পুরো রাস্তাটি দিয়ে একেবারে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী অর্ধশতাধিক পরিবারের কয়েক শ মানুষ হেঁটে পানি পার হচ্ছে। এরপর জাকারিয়া বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় মামলা করেন। মামলায় তিনজনকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় স্থানীয়ভাবে সালিস বৈঠকে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দেওয়া হয়।

তবে অভিযুক্ত আব্দুল মালেক বলেন, ‘রাস্তাটি কোনো রেকর্ডে নেই। আমার প্রয়োজনে এটি কেটে সমান করেছি।’

ক্রয় সূত্রে জমির মালিক জাকারিয়া বলেন, রাস্তাটি দিয়ে বছরের পর বছর মানুষ চলাচল করছে।

এ ব্যাপারে মিঠাপুকুর থানার ওসি জাফর বিশ্বাস বলেন, রাস্তা কেটে ফেলার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা