kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রাজাপুর খুলনায় আরো দুই খুন

কালুখালীতে প্রতিবন্ধী শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যা

পিটিয়ে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আসামি মঞ্জুর শরীফ পলাতক, গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান

খুলনা অফিস, রাজবাড়ী ও রাজাপুর (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি   

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কালুখালীতে প্রতিবন্ধী শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যা

রাজবাড়ীর কালুখালীর মাঝবাড়ী গ্রামে পাওনা মজুরি চাওয়ার ‘অপরাধে’ শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী শ্রমিক মীর্জা গোলাম কিবরিয়া রিকু ওরফে বিস্কুটকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার রাতে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিকুর স্ত্রী শাবানা বেগম গতকাল শনিবার সকালে অভিযুক্ত মঞ্জুর শরিফের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা করেছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি মঞ্জুরের ক্ষেতে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন রিকু। গত বুধবার সকালে মজুরি হিসেবে পাওনা দুই হাজার টাকা আনতে মঞ্জুরের বাড়িতে যান তিনি। এ ‘অপরাধে’ তাঁকে বাঁশের লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটান মঞ্জুর। এতে রিকু মারাত্মক আহত হন। তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়, কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাতে তাঁর মৃত্যু হয়। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে কালুখালী থানার ওসি কামরুল হাসান জানান, ঘটনার পর থেকে আসামি মঞ্জুর আত্মগোপনে আছেন। তাঁকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। গতকাল দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অন্যদিকে ঝালকাঠির রাজাপুরের ছোট কৈবর্তখালী গ্রামে গত শুক্রবার রাতে টাকা না দেওয়ায় ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেছে বাবা কাজী দোলোয়ার হোসেনের। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ছেলে হৃদয় পলাতক।

স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, হৃদয় প্রায়ই টাকার জন্য তার মা-বাবার সঙ্গে ঝগড়া করত। শুক্রবার রাতে টাকা চাওয়া নিয়ে বাবা-ছেলের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হৃদয় লাঠি দিয়ে তার বাবার মাথায় আঘাত করে। এতে দোলোয়ার গুরুতর আহত হন। তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে সেখানে তিনি মারা যান। এ বিষয়ে রাজাপুর থানার ওসি মো. জাহিদ হোসেন বলেন, হৃদয়কে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এ ছাড়া খুলনা নগরীর খালপাড় এলাকায় গতকাল মো. শাকিলকে (২২) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি পূর্ব রূপসা এলাকার মণ্ডল কম্পানির কর্মচারী ছিলেন। পুলিশের ধারণা, পূর্বশত্রুতার জেরে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে। শাকিল আড়ংঘাটা এলাকার মো. আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল দুপুরে কয়েকজন যুবক দেশীয় অস্ত্র দিয়ে শাকিলকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আড়ংঘাটা বাজার মোল্লা অটো রাইস মিলের পাশে ফেলে রেখে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। আড়ংঘাটা থানার ওসি কাজী রেজাউল করিম বলেন, হত্যার কারণ উদ্ঘাটনে কাজ শুরু হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা