kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাঘায় শিবির নেতার বাড়ি থেকে জিহাদি বই উদ্ধার

মিলেছে অর্থ আদায় ও দলে যোগদানের কুপনসহ পাকিস্তানি পতাকা

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আমোদপুর গ্রামে আইয়ুব আলী নামের এক শিবির নেতার বাড়ি থেকে এক বস্তা জিহাদি বই, একাধিক কুপনসহ পাকিস্তানি পতাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই বাড়িতে শিবিরের গোপন বৈঠক চলার খবর পেয়ে অভিযান চালায় বাঘা থানা পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সটকে পড়েন শিবির নেতারা। পরে আইয়ুব আলীর বাড়ি তল্লাশি করে দুই শতাধিক জিহাদি বইসহ পাকিস্তানি পতাকা ও দলীয় কুপন জব্দ করা হয়। আইয়ুব আলী রাজশাহী জেলা ছাত্রশিবিরের আরডি এবং বাঘা উপজেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি বলে জানা গেছে। তাঁর বাবার নাম আজগর আলী।

বাঘা থানা পুলিশ জানায়, বাঘায় শিবির নেতাদের তৎপরতা আগের চেয়ে বেড়েছে। তাঁরা চলমান জেএসসি পরীক্ষা শুরুর আগের দিন আমোদপুর জামে মসজিদে ২০ জন পরীক্ষার্থীর মাঝে পরীক্ষা উপকরণসামগ্রী বিতরণ করেছেন। এর এক সপ্তাহ আগে নদীতে ভ্রমণসহ রাতে গোপনে বৈঠক করেছেন তাঁরা। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিবির নেতা আইয়ুব আলীর বাড়িতে প্রায় ১৫-২০ জন নেতাকর্মী গোপন বৈঠক করছেন—এমন তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে শিবির নেতারা সেখান থেকে সটকে পড়েন।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, বাঘা উপজেলার আমোদপুর গ্রামে জামায়াতের আমির ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মওলানা জিন্নাত আলীর বাড়ি হওয়ার সুবাদে এই গ্রামের মসজিদটি জামায়াত-শিবিরের দখলে। দুই বছর আগে জামায়াতের জেলা আমিরসহ রাজশাহীর সব উপজেলা থেকে আগত ১২ জন জামায়াত নেতাকে এই মসজিদ থেকে আটক করা হয়।

বাঘা থানার ওসি আতিক রেজা বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর শিবির নেতা আইয়ুব আলীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে এক বস্তা জিহাদি বই, অর্থ আদায় ও দলে যোগদানের কুপনসহ পাকিস্তানি পতাকা উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। শিগগিরই অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা