kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আন্ধারমানিক নদের তীর দখল

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আন্ধারমানিক নদের তীর দখল

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার আন্ধারমানিক নদের তীর দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। আগে এই স্থানে স্পিডবোট রাখা হতো। ছবি : কালের কণ্ঠ

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার আন্ধারমানিক নদের তীর দখল করে চলছে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণকাজ। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি গত সপ্তাহে দখল করেছে। স্থানটি উপজেলা ভূমি অফিসের ১০০ হাতের মধ্যে।

সম্প্রতি সরেজমিন দেখা গেছে, খেপুপাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং উপজেলা প্রশাসনের দুটি স্পিড বোট রাখা রয়েছে আন্ধারমনিক নদের তীরসংলগ্ন সরকারি জলাশয়ে। বিগত দিনে ওয়াপদা রাস্তার ঢালের কাছাকাছি জলাশয়টি বিস্তৃত থাকত। এখন সেটির অর্ধেকের অধিক এলাকা বেদখল হয়ে গেছে। সাত-আটটি স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। বর্তমানে আগের দখল হওয়া স্থাপনার পেছন দিয়ে জলাশয়ের মধ্যে নির্মাণ করা হচ্ছে একটি স্থাপনা। জলাশয়ের যেটুকু ফাঁকা রয়েছে তাতে পাশের একটি করাত কলের গাছ রাখা হয়েছে। এতে স্পিড বোটগুলো নদীর অংশে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রাখা হয়েছে।

স্থাপনার নির্মাণকারী অপু হাওলাদার জানান, এখানে আগে থেকে বসতি ছিল। সেই বসতিতে স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। অনুমতি পাওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে।

স্থানীয় মো. গোলাম রহমান জানান, পাশে একটি হেলিপ্যাড রয়েছে। সেই মাঠের প্রায় ১০০ গজ দূরে কোনো ধরনের অবৈধ স্থাপনা থাকা ঠিক নয়। কিন্তু এখানে সেই ঝুঁকিপূর্ণ কাজটি হচ্ছে। হেলিকপ্টার ওঠানামার সময় ঝুঁকির আশঙ্কা তৈরি হতে পারে। ভূমি অফিসের সামনে এভাবে নির্বিগ্নে স্থাপনা নির্মাণ হয় কিভাবে? প্রশাসনের উচিত আন্ধারমানিক নদের তীরের অতি গুরুত্বপূর্ণ জলাশয়টি দখলমুক্ত রাখা।

কলাপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অনুপ দাস বলেন, ‘অবৈধ স্থাপনা ভেঙে লাল নিশান টানিয়ে দেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা