kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

পাটগ্রাম

সীমান্ত দিয়ে আসছে ভারতীয় চা পাতা

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি   

২৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে ভারতীয় নিম্নমানের চা পাতা অবাধে প্রবেশ করছে। ফলে ক্রেতারা দেশি চা পাতা না কিনে কম দাম দিয়ে এসব নিম্নমানের ভারতীয় চা পাতা কিনছে। ফলে একদিকে যেমন সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে, অন্যদিকে ক্ষুদ্র চা চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বুড়িমারী জিরো পয়েন্ট, পাটগ্রাম ও বাউরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ভারতীয় তৃপ্তি, সোনাল, গ্রিন ফ্রেশসহ বিভিন্ন নামের চা পাতা। এসব ভারতীয় চা পাতা কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ২৩০-২৫০ টাকায়। আর দেশি চা পাতা বিক্রি হচ্ছে ৪২০-৪৪০ টাকা দরে।

স্থানীয় বাউরা রেলস্টেশনের চায়ের দোকানদার দুলাল হোসেন বলেন, ‘দেশি চা পাতার দাম ভারতীয় চা পাতার চেয়ে দ্বিগুণ। ফলে চায়ের দোকানদাররা কম দাম দিয়ে ভারতীয় চা পাতা কিনছেন।’

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট চা প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক আরিফ খান বলেন, ‘ভারতীয় চা পাতা এভাবে অবৈধভাবে প্রবেশ করলে ক্ষুদ্র চা চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বাজারে টিকে থাকতে তাদেরও কম দামে চা পাতা বিক্রি করতে হবে। এতে সরকারও ব্যাপক রাজস্ব হারাবে।’

পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত বলেন, ‘ভারতীয় চা পাতা অবৈধভাবে দেশে নিয়ে আসায় সম্প্রতি দুই হাজার ৯০ কেজি ভারতীয় চা পাতাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে। অবৈধ পণ্য ভারত থেকে যাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাদের বিজিবি, পুলিশ যে অভিযান করছে তা অব্যাহত থাকবে। ভারতীয় চা পাতা কোনো ক্রমেই দেশে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। এ জন্য আমরা তৎপর রয়েছি। অবৈধভাবে যারা ভারতীয় চা পাতা দেশে নিয়ে আসবে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা