kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মির্জাপুরে জন্ম নিবন্ধন সনদ পেতে লাগে ৪ হাজার টাকা!

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মির্জাপুরে জন্ম নিবন্ধন সনদ পেতে লাগে ৪ হাজার টাকা!

সোহেল খান

সরকারি নিয়মানুযায়ী শিশুর জন্ম থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত জন্ম নিবন্ধন ফ্রি। পাঁচ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা ও পাঁচ বছরের ওপরে সব বয়সীদের ৫০ টাকা ফি নেওয়ার নিয়ম থাকলেও উল্টো নিয়মে চলছে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মো. সোহেল খানের আইন!প্রতি জন্ম সনদে দুই থেকে চার হাজার টাকা পর্যন্ত ফি আদায় করছেন বলে অভিযোগ করছেন ভুক্তভোগীরা।

এ ছাড়া ছয় থেকে ১৫ হাজার টাকা চুক্তিতে জন্ম নিবন্ধনের বয়স বাড়ানো ও কমানোর দায়িত্ব নিয়ে পাসপোর্ট করে দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে ওই উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে। শুধু তা-ই নয়, সোহেলের বিরুদ্ধে নামদারপুর মন্দির ভাঙা, নারীদের যৌন হয়রানি করার অভিযোগও রয়েছে। এ নিয়ে একাধিক গ্রাম্য সালিসও হয়। বাংগলা গ্রামের শাহরিয়ার আহমেদ পিয়াল বলেন, ‘আমার জন্ম নিবন্ধন করাতে ৬০০ টাকা নিয়েছেন।’ দেওড়া গ্রামের এক এনজিওকর্মী নাজমা বেগম বলেন, ‘স্কুলপড়ুয়া ছাত্রীর এক আত্মীয় তাঁর কাছে সোহেলের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন।’ পাটুলী গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘ছেলের পাসপোর্ট করাতে ১৯ বছরের পরিবর্তে ২০ বছর দেওয়ার কথা বললে সোহেল আমার কাছ থেকে ১০ হাজার ৫০০ টাকা দাবি করে।’

এ বিষয়ে বানাইল ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা সোহেল খান বলেন, ‘জন্ম নিবন্ধন সনদ দেওয়ার সময় অতিরিক্ত অর্থ নেওয়া হয় না। দু-একজনকে পাসপোর্ট করিয়ে দিই। এছাড়া নারীদের যৌন হয়রানির অভিযোগটিও মিথ্যা।’ ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরুক হোসেন বলেন, ‘কয়েকজনের কাছ থেকে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি।’ টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা