kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

সন্ত্রাসীদের হামলা

খুলনায় ছেলের মৃত্যুর আড়াই মাস পর চলে গেলেন বাবাও

খুলনা অফিস   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ছেলে নাঈম শেখের (২৬) মৃত্যুর আড়াই মাস পর একই ঘটনায় আহত পিতা পিরু শেখ (৫২) মারা গেছেন। গতকাল দুপুরে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা যান তিনি। পূর্বশত্রুতার জেরে গত ৭ আগস্ট রাতে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা তেরখাদা উপজেলার ছাগলাদাহ ইউনিয়নের পহরডাঙ্গা গ্রামের পিরু শেখের বাড়িতে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে নাঈম শেখকে হত্যা করে। এ সময় পিরু শেখ ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাঁকেও কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হওয়ায় পিরু শেখকে পরিবারের সদস্যরা প্রথমে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। কয়েক দিন পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে এক মাস চিকিৎসা শেষে তাঁকে বাড়ি আনা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ফের গত সপ্তাহে তাঁকে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন গতকাল দুপুরে মারা যান তিনি।

অন্যদিকে নাঈম শেখ হত্যার ঘটনায় তাঁর মা মাহফুজা খাতুন পরের দিন ৮ আগস্ট তেরখাদা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় স্থানীয় ছাগলাদাহ ইউপি চেয়ারম্যান এস এম দীন ইসলামসহ ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে ইউপি চেয়ারম্যান এস এম দীন ইসলাম হাইকোর্ট থেকে জামিন নেন। পরে আদালত তাঁর জামিন বাতিল করেন। এর পর থেকে পলাতক রয়েছেন তিনি।

তেরখাদা থানার ওসি সালেকুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মাহফুজা খাতুনের করা হত্যা মামলাটি এখন জোড়া হত্যা মামলায় পরিণত হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা