kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ধুনট

পাকা সড়ক যাচ্ছে নদীর পেটে

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকা সড়ক যাচ্ছে নদীর পেটে

বগুড়ার ধুনট উপজেলার মানাস নদী ভাঙছে সোনারগাঁও-গজারিয়া সড়ক। ছবি : কালের কণ্ঠ

বগুড়ার ধুনট উপজেলার চিকাশি ইউনিয়নের সোনারগাঁ-গজারিয়া পাকা সড়কের প্রায় ১০০ মিটার অংশ ভেঙে মানাস নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সোনারগাঁ তিন মাথা মোড় থেকে গজারিয়া গ্রামের মাঝপথ দিয়ে একটি সড়ক রয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটির পাশ দিয়ে বহমান মানাস নদী। এই সড়কের ৫০০ মিটার অংশ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অর্থায়নে ২০১৮ সালের ৩০ মার্চ পাকা করা হয়। এতে নির্মাণ ব্যয় হয় ২৪ লাখ টাকা। সেই সড়কটি ভেঙে যাওয়ায় এলাকার অন্তত ১৫টি গ্রামের মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে।

স্থানীয় বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল করিম বলেন, ‘নদীর পার দিয়ে রাস্তা হওয়ায় এমনিতেই অনেক ঝুঁকি নিয়ে যাওয়া-আসা করতে হয়। এরপর রাস্তাটি ভেঙে যাওয়ায় অনেক কষ্ট করে আমাদের স্কুলে যেতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীরাও অনেক কষ্টে স্কুলে আসছে। রাস্তাটি দ্রুত মেরামত করা না হলে তারা স্কুলে আসা বন্ধ করে দিতে পারে। এর একটা স্থায়ী ব্যবস্থা করা দরকার।’ গজারিয়া গ্রামের অটোভ্যান চালক আব্দুল মজিদ বলেন, ‘উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বিকল্প কোনো সড়ক নেই। তাই বাধ্য হয়ে এই ভাঙা সড়ক দিয়েই যাত্রী পরিবহন করছি। সড়কের ভাঙা স্থানে যাত্রী নামিয়ে দেই, পরে আবার উঠাই।’

ধুনট উপজেলা প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম বলেন, ‘সড়ক নির্মাণের সময় ভাঙনরোধে প্যালাসাইডিং তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু অতিবর্ষণে নদীতে পানি গড়ার সময় প্রবল চাপে প্যালাসাইডিংসহ সড়কের পাশে ভাঙন দেখা দিয়েছে। সড়কটি ভাঙনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং ভাঙন স্থানগুলো জরুরি ভিত্তিতে মেরামত করা হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা