kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

জলের ওপর শিশু বাগান

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জলের ওপর শিশু বাগান

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের স্লুইসের খালে ভাসমান ‘শিশু বাগান’ প্রাক-প্রাথমিক স্কুলে পড়াশোনা করছে শিশুরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

জলেভাসা সম্প্রদায়টির নাম মান্তা। জীবনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তাদের নৌকাতেই কাটে। যে বয়সে শিশুদের হাতে বই-খাতা-কলম থাকার কথা, সেই বয়সে তাদের কোমলমতি শিশুদের হাতে বৈঠা ধরিয়ে দেওয়া হয়। ৮-১০ বছর বয়স থেকেই নদীতে মাছ ধরতে যায় ওরা।

সেই মান্তা শিশুদের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে দাতা সংস্থা মুসলিম চ্যারিটি হেল্পিং দ্য নিডির (ইউকে) আর্থিক সহায়তায় ও উপকূলীয় উন্নয়ন সংস্থা জাগোনারীর তত্ত্বাবধানে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের স্লুইসের খালে ভাসমান ‘শিশু বাগান’ নামক একটি প্রাক-প্রাথমিক বোট স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। শিক্ষাবঞ্চিত মান্তা শিশুদের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় নিয়ে আসার জন্য ৩০ মাসের জন্য ইআইএমসি নামের একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে ওই স্কুলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী। চরমোন্তাজ ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ মিয়ার সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন আহম্মেদ, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম সগীর, বরগুনা জাগোনারীর প্রধান নির্বাহী হোসনে আরা হাসি, মুসলিম চ্যারিটির কান্ট্রি সমন্বয়কারী ফজলুল করিম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) এ কে সামসুদ্দিন আবু।

এ সময় জেলা প্রশাসক নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমরা চাই তোমরা লেখাপড়া করে মানুষের মতো মানুষ হবে। চাকরিজীবী হবে। দেশের উন্নয়নে অবদান রাখবে।’ জেলা প্রশাসক আরো বলেন, শিশুদের শিক্ষা নিশ্চিত করার পাশাপাশি মান্তা জনগোষ্ঠীর স্থায়ীভাবে বসবাসের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে। আশা করি খুব দ্রুত তা দৃশ্যমান হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা