kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

তেঁতুলিয়ায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির মাথাবিহীন লাশ

সাপাহার নন্দীগ্রামে আরো দুই মরদেহ

পঞ্চগড়, সাপাহার (নওগাঁ) ও নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির (৩৫) মাথাবিহীন লাশ মিলেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে তিরনইহাট ইউনিয়নের রণচণ্ডী এলাকার ব্রহ্মতোল স্লুইসগেট থেকে মাথাবিহীন লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। লাশের পরনে গেঞ্জি ও লুঙ্গি ছিল।

ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তেঁতুলিয়া মডেল থানার ওসি জহুরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

অন্যদিকে নওগাঁর সাপাহারের মাস্টারপাড়ায় গত বৃহস্পতিবার রাতে ভাড়া বাসা থেকে গৃহবধূ জোত্স্না খাতুনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি জয়পুরহাটের দোগাছি গ্রামের মো. ফারুক হোসেনের দ্বিতীয় স্ত্রী ছিলেন। ঘটনার পর থেকে ফারুক পলাতক। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

এ ছাড়া বগুড়ার নন্দীগ্রামে গতকাল গৃহবধূ বিথী আক্তারের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। তিনি চাকলমা গ্রামের বাবু প্রামাণিকের স্ত্রী। মাত্র এক বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বাবু উপজেলা পরিষদ তথ্যকেন্দ্রে উদ্যোক্তা সহকারী হিসেবে কাজ করেন। গতকাল সকালে স্ত্রী বিথীকে ল্যাপটপ নিয়ে আসতে বলেন তিনি। নিয়ে আসার সময় বিথীর হাত থেকে ল্যাপটপটি পড়ে যায়। এতে বাবু ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীকে মারধর করেন। পরে বিথী অন্য ঘরে গিয়ে অতিরিক্ত গ্যাসের ট্যাবলেট সেবন করেন।

পরিবারের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে তাঁকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিথীর মৃত্যু হয়। এ বিষয়ে নন্দীগ্রাম থানার ওসি মোহাম্মদ শওকত কবির বলেন, ‘মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা