kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

উপজেলা নির্বাচন

মেহেন্দীগঞ্জে পঙ্কজ সমর্থিত প্রার্থীর কেন্দ্র দখল

বরিশাল অফিস   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মেহেন্দীগঞ্জে পঙ্কজ সমর্থিত প্রার্থীর কেন্দ্র দখল

বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সমর্থিত প্রার্থীর প্রভাবে ভোটযুদ্ধে টিকতে পারেননি আওয়ামী লীগ মানোনীত প্রার্থী। গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনের দিন উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ৯৯টি ভোটকেন্দ্রের ৫৮৬টি কক্ষে কোথাও নৌকার কোনো পোলিং এজেন্টও খুঁজে পাওয়া যায়নি। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মুনসুর আহমেদের অভিযোগ, স্থানীয় সংসদ সদস্যের হুমকি-ধমকির কারণে এজেন্টরা কেন্দ্রে যাওয়ার সাহস পাননি।

এদিকে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোট অনুষ্ঠান শান্তিপূর্ণ থাকলেও উৎসবমুখর ছিল না। ভোটারদের দীর্ঘ লাইন না থাকায় একপ্রকার ফাঁকা ছিল প্রায় প্রতিটি ভোটকেন্দ্র। তবে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার নুরুল মোহাম্মদ আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে ৯৯টি কেন্দ্রের কোথাও নৌকা প্রতীকের পোলিং এজেন্ট না থাকার বিষয়ে প্রিসাইডিং অফিসার জানিয়েছেন, সকাল থেকে নৌকা প্রতীকের পোলিং এজেন্ট আসেননি। কী কারণে আসেননি তা আমাদের জানা নেই। তা ছাড়া প্রার্থীর পক্ষ থেকেও আমাদের জানানো হয়নি। উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ৯৯টি ভোটকেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ হয়েছে। এ উপজেলায় মোট ভোটারসংখ্যা দুই লাখ ১৮ হাজার ৮৮৬ জন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ ছয়জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুনসুর আহমেদকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হলে স্থানীয় সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ এর বিরোধিতা করেন এবং তাঁর অনুসারী মশিউর রহমান লিটনকে সমর্থন দেন। যে কারণে ভোটের দিনও আওয়ামী লীগের বেশির ভাগ নেতাকর্মী নৌকা প্রতীক ছেড়ে ঘোড়া প্রতীকের পক্ষে কাজ করেন।

তাতে নৌকার প্রার্থী অ্যাডভোকেট মুনসুর আহমেদ ভোটের মাঠে দাঁড়াতেই পারেননি। এ অবস্থায় নির্বিঘ্নে এমপি সমর্থিত মশিউর রহমান লিটনের ঘোড়া প্রতীকের পক্ষে কাজ করেন দলের বেশির ভাগ নেতাকর্মী।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মুনসুর আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ নৌকা প্রতীকের বিরোধিতা করে মশিউর রহমানের পক্ষ নেন। তা ছাড়া ভোটকেন্দ্রের জন্য যে এজেন্ট তালিকা করা হয়, পঙ্কজ দেবনাথ সেসব নেতাকর্মীকে নানা ধরনের হুমকি-ধমকি দেওয়ায় তাঁরা ভোটকেন্দ্রে যেতে সাহস পাননি। এমনকি অন্য সব প্রার্থীর পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়। পঙ্কজ অনুসারী ক্যাডাররা আওয়ামী লীগসহ সাধারণ ভোটারদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়নি। এমনকি প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা পঙ্কজ দেবনাথের নির্দেশে আমিসহ অন্য প্রার্থীদের অসহযোগিতা করেছেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা