kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

বাঘায় ইউপি নির্বাচন

বিএনপির ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে নিষেধ!

কেন্দ্রে এলে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হচ্ছে

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

১২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আসতে নিষেধ করছেন নৌকার প্রার্থীর সমর্থকরা। এ বিষয়ে পাকুড়িয়া ইউনিয়ন বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফকরুল হাসান বাবলু (আনারস) উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন স্থানে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী মেরাজুল ইসলাম মেরাজের সমর্থকরা ফকরুল হাসান বাবলুর লোকজনকে আগামী ১৪ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ভোটকেন্দ্রে যেতে নিষেধ করছে। বিএনপির সমর্থকরা কেন্দ্রে এলে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। বিএনপির প্রার্থীর পোস্টার ছেঁড়া ছাড়াও প্রচারণায় বাধা দেওয়া হচ্ছে। পাকুড়িয়া ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ।

তা ছাড়া প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক সেলিম হোসেন, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার রুহুল আমিন নৌকার পক্ষে এলাকায় ভোট চাচ্ছেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এ দুই কর্মকর্তাকে পরিবর্তনের দাবি জানান তিনি। অতি ঝুঁকিপূর্ণ ৩, ৬ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডে পর্যাপ্ত পরিমাণ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য নিয়োগ দেওয়ারও দাবি জানান।

এ বিষয়ে ফকরুল হাসান বাবলু বাদী হয়ে গতকাল শুক্রবার বাঘা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। যার অনুলিপি নির্বাচন কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং বাঘা থানার ওসিকে দেওয়া হয়েছে।

তবে পাকুড়িয়া ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মেরাজুল ইসলাম এই অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে বলেন, ‘ফকরুল হাসান বাবলু চেয়ারম্যান থাকাকালে টাকা ছাড়া কোনো কাজ করেননি। এ কারণে তিনি ভোট পাবেন না বলে আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তুলছেন।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুল আলম বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা ভিত্তিহীন। তা ছাড়া যেসব প্রার্থী অভিযোগ দিতে আসছেন, তাঁদের অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা