kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

ফুলছড়িতে ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধা

ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান দখল
দুই বোনের শ্লীলতাহানি

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার উড়িয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা খবির উদ্দিন সরকারের মেয়ে খুশবা আকতারের হোটেলটি সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে জবরদখল করে নিয়েছে।

এ সময় তাদের বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা হোটেলে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে তাঁর বসতবাড়িতে হামলা চালায়। তারা খুশবা আকতার ও তাঁর বোন ফাতেমা আকতারকে বেদম মারধর করে। তারা ওই দুই বোনের শ্লীলতাহানিও ঘটায়। ওই হামলায় একই গ্রামের সন্ত্রাসী ইসমাইল, জুয়েল, ইয়াছিনসহ তাঁদের সহযোগীরা খুশবার স্বামী ইউসুফ আলীকেও বেদম মারধর করে। এ সময় ফাতেমা আকতার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে থানায় খবর দেন। ফোন পেয়ে ফুলছড়ি থানার এসআই রফিক ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করেন। পরে পুলিশ ওই তিন আহতকে চিকিৎসার জন্য গাইবান্ধা  জেলা হাসপাতালে পাঠায়। এ ব্যাপারে ফুলছড়ি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বর এ হামলার ঘটনা ঘটে।

গতকাল বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা খবির উদ্দিন সরকার লিখিত বক্তব্যে এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, তাঁর বড় মেয়ে খুশবা আকতারকে বিয়ে দেওয়ার পর তাঁদের সংসারে অভাব দেখা দিলে তিনি একটি দোকান কিনে মেয়েকে দেন। ওই দোকানে জামাই ইউসুফ আলী হোটেলের ব্যবসা শুরু করেন। এই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ভালো ব্যবসা করতে শুরু করলে ইউসুফের ছোট ভাই ইসমাইল, জুয়েল ও ইয়াছিন আলী সহযোগী সন্ত্রাসীদের নিয়ে সেটি দখলের চেষ্টা চালান। পরদিন সন্ত্রাসীরা খুশবা আকতারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাঁদের মারধর এবং বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। নিরাপত্তার জন্য ইউসুফ আলী ফুলছড়ি থানায় একটি জিডি করেন। পরে ওই সন্ত্রাসীদের আসামি করে ইউসুফ আলী ফুলছড়ি থানায় একটি মামলাও করেন।

এই মামলা থেকে রেহাই পেতে সন্ত্রাসীরা নিজেদের হাত, পা কেটে হাতে কৃত্রিম জখম দেখিয়ে ব্যান্ডেজ করে ফুলছড়ি থানায় গত ১ অক্টোবর উল্টো মিথ্যা মামলা দায়ের করে। এতে মুক্তিযোদ্ধা, তাঁর স্ত্রী, দুই মেয়ে, জামাই  ও নাতি-নাতনিদের আসামি করা হয়। এদিকে সন্ত্রাসীরা আরো বেপরোয়া হয়ে মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁর পরিবারকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখানোসহ হত্যার হুমকি দিচ্ছে। নিরাপত্তার অভাবে মুক্তিযোদ্ধা খবির উদ্দিন তাঁর পরিবার-পরিজন নিয়ে এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। তিনি এ ব্যাপারে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা খবির উদ্দিন সরকারের স্ত্রী নুর আকতার, মেয়ে খুশবা আকতার ও ফাতেমা আকতার।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা