kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কলাপাড়ায় সংবাদ সম্মেলন

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা সোহাগের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামিম আল সাইফুল সোহাগের বিরুদ্ধে পাঁচটি পরিবারের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে পটুয়াখালীর কলাপাড়া প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করা হয়।

লিখিত বক্তব্যে বালিয়াতলী ইউনিয়নের ইনারা বেগম অভিযোগ করেন, পাঁচটি পরিবারের বন্দোবস্ত কেসের মাধ্যমে সরকার তাঁদের সাড়ে সাত একর জমি বন্দোবস্ত দেয়। এর পর থেকে তাঁরা সেই জমিতে বসবাসের পাশাপাশি চাষাবাদ করছিলেন। কিন্তু ক্ষমতার অপব্যবহার করে যুবলীগ নেতা সোহাগ ভূমি অফিসকে ভুল বুঝিয়ে পাঁচ একর জমি ডিসিআর নিয়ে মাছের ঘের করেন।

সাত বছর আগে তাঁর ডিসিআরের মেয়াদ শেষ হলেও সেই জমি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। এর প্রতিবাদ করলে তাঁদের বিরুদ্ধে ঢাকা, পটুয়াখালী ও কলাপাড়ায় ১১টি মামলা করা হয়।

এ ছাড়া আদালত তাঁদের দখলে থাকা জমিতে কারো অনুপ্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিলেও যুবলীগ নেতা সোহাগ জমির ওপর বাঁধ দিয়ে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করেন।

এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর আবেদন করলে তাঁর নির্দেশে ভূমি কর্মকর্তারা জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে সেই বাঁধ কেটে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মাকিত হোসেনকে বাদী বানিয়ে গত মঙ্গলবার ভূমিহীন নুর ছায়েদ হাওলাদার, তহশিলদার কামরুল ইসলাম, সোহেল, নোয়াব আলী, নুর মোহাম্মদ, নুর ইসলাম ও তাঁকে (ইনারা) আসামি করে কলাপাড়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করা হয়।

লিখিত বক্তব্যে আরো অভিযোগ করা হয়, ওই যুবলীগ নেতা নিজের সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাঁদের প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছেন।

তবে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সোহাগ তাঁর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা