kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঈশা খাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

শিক্ষককে ছুরি মেরে হত্যার চেষ্টা ছাত্রের!

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোরগঞ্জের ঈশা খাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষককে ছুরি মেরে হত্যার চেষ্টা চালায় এক ছাত্র। তবে অন্য শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রচেষ্টায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি।

বেসরকারি এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, নিয়ম হচ্ছে নিয়মিত ক্লাসে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরাই শুধু পরীক্ষায় বসার সুযোগ পাবে। এলএলবির দশম সেমিস্টারের ছাত্র শেখ মোজাম্মেল মাহমুদ রিয়েল এ পর্যন্ত কোনো ক্লাসে অংশ নেননি। তার পরও পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দিয়ে তাঁকে ১১তম সেমিস্টারে উত্তীর্ণ করার দাবি জানান তিনি। বিভাগীয় প্রধান এ সুযোগ না দেওয়ায় গত শনিবার দুপুরে তিনি ছুরি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে মহসিন খানকে খুঁজতে থাকেন। এ সময় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তখন চার তলায় এলএলএমের পরীক্ষা নিচ্ছিলেন মহসিন খান। সেখানে গিয়ে তাঁর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন রিয়েল। তবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রচেষ্টায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। তার পরও সামান্য আহত হন।

মহসিন খান বলেন, ‘লোকজন না থাকলে সে আমাকে মেরেই ফেলত। ছেলেটি তখন নেশাগ্রস্ত ছিল বলে আমার মনে হয়েছে। পরে সে দ্বিতীয় তলায় গিয়ে ২০৯ নম্বর কক্ষ ভাঙচুর করে চলে যায়।’ ঈশা খাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর মো. আরজ আলী ঘটনাটিকে দুঃখজনক আখ্যা দিয়ে বলেন, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের সেক্রেটারি প্রফেসর ডা. আ ন ম নৌশাদ খান বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক উদাসীনতার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। আমি বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন।’ শহরের নীলগঞ্জ রোডে তিনটি ভবনে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসের কাছেই বাসা হওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তিনি প্রভাব দেখানোর চেষ্টা করতেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা