kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিএমডিএর ১২ প্রকৌশলীকে তাৎক্ষণিক বদলি

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) প্রকৌশল বিভাগের ১২ কর্মকর্তাকে স্ট্যান্ড রিলিজ করেছে। গত বৃহস্পতিবার ও গতকাল রবিবার আলাদাভাবে দুটি আদেশে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। বিএমডিএর নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদ স্বাক্ষরিত আদেশে ওই কর্মকর্তাদের বদলি করা হয়। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে ৪০ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলি করা হলো।

বড় ধরনের এই বদলির কারণ হিসেবে জানা গেছে, সম্প্রতি বিএমডিএর বিরুদ্ধে ওঠা নানা অনিয়ম-দুর্নীতি রোধে বদলির সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত ১৯ আগস্ট কালের কণ্ঠে বিএমডিএর সাত কোটি টাকার অনিময় নিয়ে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরপর গত ৫ সেপ্টেম্বর দুদকের একটি টিম বিএমডিএর প্রধান কার্যালয় রাজশাহীতে অভিযান চালায়। অভিযান শেষে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ও অনুসন্ধান দলের প্রধান আলমগীর হোসেন জানান, কোটেশনের মাধ্যমে কেনাকাটা, আমবাগান ইজারা, সরকারি পরিপৎর অমান্য করে বেতন স্কেল প্রদান ও পল্লী বিদ্যুতের অবৈধ ব্যবহারের ক্ষেৎরে ভয়াবহ দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া গেছে। এরপর ওই দিনই ১২ প্রকৌশলীকে একসঙ্গে বদলি করা হয়। বদলি হওয়া কর্মকর্তারা হলেন, বিএমডিএর প্রধান কার্যালয়ের তৎৎবাবধায়ক প্রকৌশলী শামসুল হোদা, তৎৎবাবধায়ক প্রকৌশলী ড. আবুল কাশেম, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, নির্বাহী প্রকৌশলী (চলতি দায়িৎব) তরিকুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও সার্কেলের তৎৎবাবধায়ক প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম খান, জয়পুরহাট রিজিয়নের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক, রাজশাহীর পবা জোনের উপসহকারী প্রকৌশলী রাহাত পারভেজ ও দুর্গাপুর জোনের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. শামসুল আলম, প্রধান কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান, রংপুর জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী নূর ইসলাম, নওগাঁ জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল মালেককে প্রধান কার্যালয়ে এবং প্রধান কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী (চলতি দায়িৎব) এনামুল কাদিরকে নওগাঁ জোনে বদলি করা হয়েছে। তাঁদের আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বদলি হওয়া কর্মস্থলে যোগ দিতে বলা হয়েছে। এর আগে গত ৩১ আগস্ট একসঙ্গে ২৮ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলি করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা