kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঋতু পরিবর্তন

মণিরামপুরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে জ্বর, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে যশোরের মণিরামপুরের শিশুরা। গত এক সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০ শিশু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছে। ভর্তি হচ্ছে কমপক্ষে ১০-১৫ জন। তবে কাঙ্ক্ষিত সেবা মিলছে না বলে অভিযোগ স্বজনদের। বেশির ভাগ ওষুধ বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে তাদের। তার ওপর নার্সদের খারাপ আচরণ তো আছেই। 

গত বৃহস্পতিবার ডায়রিয়ায় আক্রান্ত আট মাসের ছেলে আবু হুযাইফাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন গোপালপুর গ্রামের কৃষক আব্দুর রহিম। দুই দিনে এখান থেকে প্যারাসিটামল ও জিংক সিরাপ ছাড়া কোনো ওষুধ পাননি তাঁরা। গতকাল শনিবার সকাল পর্যন্ত ছেলের জন্য এক হাজার ৫০০ টাকার ওষুধ কিনেছেন তিনি।

শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি লামিমের মা শাহানাজ গতকাল অভিযোগ করে বলেন, ‘জ্বর হওয়ায় তিন দিন আগে ছেলেকে ভর্তি করেছি। সকালে ছেলে জ্বরে কাঁপছিল। আমি নার্সদের ডাকতে গেলে তাঁরা আসেননি। উল্টো বকাঝকা করেছেন।’

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগের শিশু ওয়ার্ডের চিকিৎসক উপসহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার ডা. তহিদুল হাসান বলেন, ‘অতিরিক্ত গরমের মধ্যে থেমে থেমে বৃষ্টি হওয়ার কারণে নিয়মিত জ্বর, বমি, ডায়রিয়া ও সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা।’

অন্যদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শুভ্রা রানী দেবনাথ বলেন, ‘আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে শিশুরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসছে। তাদের প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকেই দেওয়া হচ্ছে। সরবরাহ কম থাকায় মাঝেমধ্যে বাইরে থেকে কিছু ওষুধ কিনতে হচ্ছে।’ এ ছাড়া রোগীর স্বজনদের সঙ্গে নার্সদের খারাপ আচরণ করার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা