kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চৌগাছায় থামছে না মাদকের আগ্রাসন

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চৌগাছায় থামছে না মাদকের আগ্রাসন

যশোরের চৌগাছা উপজেলার সলুয়া বাজারসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামে একটি শক্তিশালী মাদকচক্র গড়ে উঠেছে। চক্রের সদস্যরা প্রতিনিয়ত ফেনসিডিল, ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রি করছে। দীর্ঘদিন চক্রটি সক্রিয় থাকলেও গডফাদাররা থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে।

প্রভাবশালী মাদক কারবারি ছাড়াও শুধু সলুয়া বাজারে ১৫-১৬ জন কিশোর নতুন করে মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে। তাদের বয়স ১৫-১৭ বছরের মধ্যে। অভিযোগ উঠেছে, থানা পুলিশের কিছু অসাধু সদস্য সাদা পোশাকে গিয়ে মাদকচক্রের সদস্যদের কাছ থেকে নিয়মিত মাসোয়ারা নিচ্ছেন। মাদক কারবারি ও পুলিশের মধ্যে সখ্য গড়ে ওঠায় এলাকায় কোনোক্রমেই থামছে না মাদকের আগ্রাসন। এ ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানায়, সলুয়া ও চাঁন্দা আফরা এলাকাকে সবাই মাদকের হাট বলে জানে। পুলিশ প্রশাসনও এ দুই গ্রামের মাদকের বিস্তার সম্পর্কে অবগত। তিন-চার মাস আগে পুলিশ ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়ে এখানকার মাদক কারবারিরা। তবে বর্তমানে কারবারিরা ফের স্বমূর্তিতে আবির্ভূত হয়েছে।

সলুয়া বাজার ও চাঁন্দা আফরা গ্রামে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অনেকটা প্রকাশ্যেই মাদকের কেনাবেচা চলে। অনেকেই নিজ বাড়িতে বসে মাদকের কারবার করছে। স্থানীয়রা জানায়, বর্তমানে ফেনসিডিল, ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রি করছেন চাঁন্দা আফরা গ্রামের চিহ্নিত মাদক কারবারি স্বপন, তাঁর ভাইপো রবিউল, দেলু মিয়া, আলেক, মফিজ, ফুলসারা গ্রামের নাদির, বুদো, খায়রুল, রানীয়ালী গ্রামের আতি ও বাড়িয়ালী গ্রামের মইন। এই চক্রের সঙ্গে হাত মিলিয়ে মাদক সরবরাহ করছে উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তের মাদক কারবারিরা। এ ছাড়া অন্য এলাকার মাদক কারবারিরাও সলুয়া বাজারে এসে মাদকদ্রব্য বেচাকেনা করছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিগত দিনে এসব মাদক কারবারিরা পুলিশের হাতে একাধিকবার আটক হয়েছে। কিন্তু জামিনে বের হয়ে এসে আবার কারবারে জড়িয়েছে।

বর্তমানে মাদকচক্রটি পরিচালনা করছে সলুয়া বাজারের কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। মাদক কারবারিরা এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করার জন্য পুলিশের পাশাপাশি প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করেছে। ফলে চক্রটির বিরুদ্ধে কেউ মুখ খোলার সাহস পাচ্ছে না।

সূত্র জানায়, বিভিন্ন সীমান্ত এলাকার মাদক কারবারিদের সঙ্গে চৌগাছার মাদকচক্রের প্রধানদের সুসম্পর্ক রয়েছে। তাদের মাধ্যমেই এ এলাকায় মাদক পৌঁছে যাচ্ছে। বর্তমানে সলুয়ায় হাত বাড়ালেই মিলছে ফেনসিডিল, ইয়াবা ও গাঁজা। এ নিয়ে এখানকার অভিভাবকরা চরম উদ্বিগ্ন।

এ ব্যাপারে চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব বলেন, ‘মাদকের সঙ্গে থানা পুলিশের কোনো আপস নেই। এখানকার মাদকচক্রের বিরুদ্ধে পুলিশ সব সময় তৎপর। মাঝেমধ্যে আমরা গ্রেপ্তার ও অভিযান পরিচালনা করছি। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই তারা জামিনে বের হয়ে আসছে। ফলে পুলিশের গ্রেপ্তার অভিযান তেমন কাজে আসছে না।’

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা