kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্কুলছাত্রীকে বহিষ্কারের ঘটনায় উত্তেজনা

আক্কেলপুর

জয়পুরহাট ও আক্কেলপুর প্রতিনিধি   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুল থেকে বহিষ্কারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলার জামালগঞ্জে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। গত বৃহস্পতিবার প্রতিবাদ সমাবেশ, মানববন্ধন ও দুই পক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

সমাবেশ থেকে তাঁরা দাবি করেন, ‘টিফিন থেকে দেরিতে ক্লাসে ফেরার তুচ্ছ অভিযোগে একজন কোমলমতি শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করতে পারে না স্কুল কর্তৃপক্ষ। আসল ঘটনা হলো, পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে ওই শিক্ষার্থীর বাবা বর্তমান সভাপতির বিপক্ষে ভোট করার প্রতিশোধ নিতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আমরা এর নিন্দা জানাই।’

অন্যদিকে অফিস সহকারীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় সভাপতি ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ অবসর বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার ওই শিক্ষার্থীর পক্ষের ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরো ১০-১২ জনকে আসামি করে আক্কেলপুর থানায় মামলা করেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় জেটিসির মোড়ে সমাবেশ করে মামলার প্রতিবাদ জানায় অন্য পক্ষ।

ওই ছাত্রীর মা সুলতানা পারভীন বলেন, “আমার মেয়ে খাবার নিয়ে না যাওয়ায় টিফিনের সময় বাইরে খেয়ে ক্লাসে ফিরতে কিছুটা দেরি হয়। এই অভিযোগে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমাকে ডেকে নিয়ে বিষয়টি জানান। এ সময় একটি ফোন পেয়ে প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘আপনার মেয়েকে এ স্কুলে আমরা রাখতে পারব না। তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ তখন আমি অনেক কান্নাকাটি করেছি। কিন্তু তিনি আমার কোনো কথা শোনেননি। পরে স্কুল থেকে মেয়েসহ আমাকে বের করে দেওয়া হয়।”

স্থানীয় রুকিন্দিপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান হাবিব বলেন, এমন তুচ্ছ কারণে একজন শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত দুঃখজনক।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক রানা কুমার মণ্ডল বলেন, ‘ওই শিক্ষার্থী অনুমতি না নিয়ে দুপুর ১টার দিকে বাইরে যায়। আর স্থানীয় এক ছেলের সঙ্গে ফিরে আসে ৩টার পর। স্কুলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে পরিচালনা কমিটির সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।’

পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ অবসর সাংবাদিকদের বলেন, ‘অন্য কোনো কারণে নয়, শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ওই শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।’

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ টি এম জিল্লুর রহমান বলেন, ‘এমন তুচ্ছ কারণে তারা মেয়েটিকে টিসি দিতে পারে না। তা ছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আগে আমাদের জানায়নি। এখন স্কুল কর্তৃপক্ষই ঠিক করবে কিভাবে পরিবেশ স্বাভাবিক করবে।’

আক্কেলপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবু রায়হান বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করলে দুই পক্ষে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ সময় উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে পরিবেশ শান্ত করা হয়।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা