kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গোয়ালন্দে শহীদ মিনারের বেদি সংকুচিত, ক্ষোভ

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোয়ালন্দে শহীদ মিনারের বেদি সংকুচিত, ক্ষোভ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারটির বেদি ভেঙে সংকুচিত করা হচ্ছে। ছবিটি গতকাল সকালে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মুক্তিযোদ্ধা ফকির মহিউদ্দিন আনছার ক্লাব চত্বরে অবস্থিত। শহীদ মিনারটি প্রতিষ্ঠিত হয় কয়েক দশক আগে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিবছর মহান শহীদ দিবস, বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবসসহ বিভিন্ন জাতীয় দিবসে সব শহীদ স্মরণে সেখানে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করে আসছে উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ এলাকার হাজার হাজার মানুষ। পাশাপাশি বাঙালি কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে তুলে ধরে ওই শহীদ মিনারে নিয়মিত অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে পথনাটক, কবিতা আবৃত্তি উৎসবসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এমন অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ এ শহীদ মিনারের বেদি ভেঙে সংকুচিত করার অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, গোয়ালন্দ উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হাঁতুড়ি-শাবল চালিয়ে মিনারের বেদি ভাঙার কাজ করছে কয়েকজন শ্রমিক। এ সময় সেখানে উপস্থিত রাজমিস্ত্রি শামীম মোল্লা জানান, কাজের নির্দেশনা অনুযায়ী এই শহীদ মিনারে কোনো বেদি থাকবে না। তাই বেদিটি ভেঙে ফেলা হচ্ছে। তবে বেদির পরিবর্তে শুধু সিঁড়ি থাকবে। পাশাপাশি মিনারের গায়ে টাইলস লাগানো হবে। কাজটি করছে রাজবাড়ী জেলা পরিষদ। তিনি আরো জানান, জেলা পরিষদের এ কাজটি দেখাশোনার দায়িত্বে রয়েছেন গোয়ালন্দ পৌরসভার প্যানেল মেয়র কোমল কুমার সাহা।

এদিকে শহীদ মিনারের বেদি ভাঙার খবর জেনে সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মীসহ এলাকার সচেতন অনেকেই সেখানে ছুটে আসেন। এবং শহীদ মিনারের বেদি ভাঙতে দেখে তাঁরা বিস্মিত হন। উপস্থিত একজন মুক্তিযোদ্ধা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘শহীদ মিনার আমাদের মহান ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতীক। সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য সম্প্রসারণ না করে কেন বেদি ভেঙে শহীদ মিনারটি সংকুচিত করা হচ্ছে তা আমরা কেউ জানি না।’ এ বিষয়ে গোয়ালন্দ পৌরসভার প্যানেল মেয়র কোমল কুমার সাহা বলেন, ‘একজন ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজটি করছে রাজবাড়ী জেলা পরিষদ। আমি শুধু ওই কাজের দেখাশোনা করছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা