kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বদলগাছী

খামারের দুর্গন্ধ স্কুলে

বদলগাছী-মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁর বদলগাছীতে স্কুলের পাশে মুরগির খামার গড়ে তোলায় শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে। এ অবস্থায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যও ঝুঁকির মুখে পড়েছে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর রাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে মুরগির খামারটি গড়ে তোলা হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের দক্ষিণ দিকে মাত্র দুই গজ দূরে খামারটি গড়ে তোলায় দুর্গন্ধে ছাত্রছাত্রীদের নিয়মিত শিক্ষাদান ব্যাহত হয়ে পড়েছে। শ্রেণিকক্ষে বসে থাকা খুবই কষ্টকর। তার পরও স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে স্কুল পরিচালনা করছেন শিক্ষকরা। মুরগি ও মুরগির বিষ্ঠার দুর্গন্ধে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন।

বিদ্যালয়ের নলকূপ এবং টয়লেটটি মুরগির খামারের পাশেই। ফলে অনেক শিক্ষার্থী দুর্গন্ধে পানি পান এবং টয়লেট ব্যবহার করতে যেতে চায় না। অথচ নীতিমালায় আছে বসতবাড়ি, শিক্ষা, জাতীয় প্রতিষ্ঠান থেকে দূরে সুনির্দিষ্ট স্থানে হাঁস-মুরগির খামার, কলকারখানা তৈরি করতে হবে।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোস্তাক আহমেদ চৌধুরী ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি কছির উদ্দীন, সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমসহ অন্য শিক্ষকরা বলেন, বেলালকে বারবার নিষেধ করা সত্ত্বেও খামারটি তৈরি করেছে। আমাদের কোনো কথাই শোনেনি। এর প্রতিকার চেয়ে গত ২৪ মার্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করা হলে তিনি থানায় যোগাযোগ করতে বলেন। তাঁর কথা অনুযায়ী থানার ওসির কাছে অভিযোগ দাখিল করি।’

জানা গেছে, বদলগাছী থানার ওসি বিষয়টি দেখার জন্য এসআই গৌরাঙ্গকে দায়িত্ব দিলে তিনি গিয়ে মুরগির খামারের মালিক বেলাল হোসেনকে খামারটি চালু করতে নিষেধ করেন। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি। কিছুদিন পর বেলাল খামারে মুরগি তোলেন। বিষয়টি আবারও থানায় জানানো হলে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পরে বিষয়টি আবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও জানানো হয়।

খামার মালিক বেলাল হোসেন বলেন, ‘আমি স্কুলের দিকে একটু উঁচু করে ইটের দেয়াল দিয়েছি, যাতে দুর্গন্ধ না যায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমার জমিতে আমি মুরগির খামার করেছি। তাতে স্কুলের মাস্টার, সভাপতি ও প্রশাসনের এত মাথাব্যথা কেন বুঝতে পারছি না।’

বদলগাছী থানার ওসি জালাল উদ্দিন বলেন, ‘খামারে মুরগি তুলেছেন। এখানে আমি কী করব? খামার গড়ে তোলার আগে অভিযোগ পেলে বন্ধ করে দিতাম।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম আলী বেগ বলেন, ‘আমি কখনো ওনাকে খামার তৈরির অনুমতি দিইনি। খামারটির জন্য স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সমস্যা হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা