kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বরিশালে ছদ্মনামে লঞ্চের অনুমোদন বিপাকে ১৫ ঘাট ইজারাদার

বরিশাল অফিস   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরিশালের বিভিন্ন এলাকায় ১৫টি নৌপথে ছদ্মনামে অবৈধ লঞ্চ চলাচলের অনুমোদন দেওয়ায় বিআইডাব্লিউটিএর ইজারাদাররা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, এতে সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণের রাজস্ব।

গতকাল বুধবার দুপুর ১২টায় বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্ত লঞ্চঘাট ইজারাদার ও ঘাট মালিকরা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন ঘাট ইজারাদার ও গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরদার মনিরুজ্জামান মনির। মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ঢাকা-বরিশাল ভায়া নন্দীবাজার, ঢাকা-টরকি, সূর্যমনি, মাদারীপুর, মুলাদীসহ ১৮টি লঞ্চ সময়সূচির অনুমোদন নিয়ে যাত্রীসেবা দিয়ে আসছে। প্রভাব খাটিয়ে ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডাব্লিউটিএ) কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপুর মালিকানাধীন মেসার্স ফারহান ও মেসার্স আগরপুর নেভিগেশন কম্পানিকে ওই সব রুটে লঞ্চ চলাচলের সময়সূচির অনুমোদন দেওয়া হয়। তারা ১৫টি লঞ্চঘাট ব্যবহার না করে অন্য ঘাট থেকে যাত্রী তুলছে। এতে ১৫টি ঘাটের ইজারাদার ও ঘাট মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ইজারাদার ও ঘাট মালিকদের অভিযোগ সম্পর্কে গোলাম কিবরিয়া টিপু বলেন, বিআইডাব্লিউটিএ থেকে ওই সব রুটের ঘাট পরিচালনার অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। নিয়ম মেনেই লঞ্চঘাটগুলো পরিচালনা করা হচ্ছে। বিআইডাব্লিউটিএর পরিচালক নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগ মো. আবু জাফর হাওলাদার জানান, বিষয়টি জানা নেই। লঞ্চ চলাচলে সময়সূচি দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের অনিয়ম করা হলে তা বাতিল করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা