kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রায়পুরায় গণধর্ষণ

আদালতে দুই আসামির স্বীকারোক্তি

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর রায়পুরায় গত রবিবার তালাকপ্রাপ্ত এক সন্তানের জননী গার্মেন্টকর্মীকে গণধর্ষণের ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তারকৃত দুই আসামি শিপন ও শামীম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলত জবানবন্দি দিয়েছেন। গত সোমবার দুপুরে নরসিংদীর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শামীমা আক্তারের আদালতে ঘটনার দায় স্বীকার করে তাঁরা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের বেলতলী এলাকা থেকে মামলার আরেক আসামি রুবেলকে গ্রেপ্তার করে।

এ ঘটনায় এর আগে সোমবার ঘটনার শিকার ওই নারী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তিনজনকে আসামি করে রায়পুরা থানায় মামলা করেন। পুলিশ ওই দিনই শিপন ও শামীমকে গ্রেপ্তার করে।

উল্লেখ্য, গোপালগঞ্জ সদরের শান পুকুরিয়া এলাকার বাসিন্দা ওই মেয়ের সঙ্গে রায়পুরা উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের বেগমাবাদ হুগলাকান্দি এলাকার শিপনের দেড় বছর আগে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয়। ওই নারী গাজীপুরের বোর্ডবাজার এলাকায় একটি গার্মেন্টে কাজ করতেন। একপর্যায়ে শিপন তাঁকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। তাতে রাজি হওয়ায় রবিবার সন্ধ্যায় ঢাকা হজরত শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় আসতে বলেন। পরে শিপন তাঁকে নিয়ে রওনা দিয়ে রাত ১০টার দিকে নরসিংদীর রায়পুরা বাসস্ট্যান্ডে এসে নামেন। সেখান থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে ওই নারীকে মুছাপুর ইউনিয়নের গৌরীপুরা এলাকায় তালুককান্দি সূর্যের মোড়ে মানিক মিয়ার গ্যারেজে নিয়ে আসেন। পরে রুবেল ও শামীমকে নিয়ে তিনজন রাতভর তাঁর ওপর নির্যাতন চালান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা