kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সুতা রেখেই সেলাই

চিকিৎসক বললেন ‘থাকতেই পারে’

রাজশাহীর জমজম ইসলামী হাসপাতাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ও রাবি প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে গোড়ালিতে গুরুতর আঘাত পান কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা। তখন তাঁর চিকিৎসা করেন রাজশাহীর জমজম ইসলামী হাসপাতালের চিকিৎসক গোলাম কিবরিয়া ডন। পায়ে বেশ কয়েকটি সেলাই পড়ে জাকিয়ার। কিন্তু অপারেশনের পর ক্রমেই তাঁর অবস্থা আরো খারাপ হতে থাকে। একপর্যায়ে ক্ষতস্থানের চারপাশ দিয়ে পুঁজ আসা শুরু হয়। গত সোমবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে দ্বিতীয় দফায় তাঁর অপারেশন হয়। তখন ক্ষতস্থানের ভেতর থেকে সুতা (ফরেন বডি) বের করা হয়।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জাকিয়ার বাবা রাজশাহী নগরীর তেরোখাদিয়া এলাকার মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, এই সুতার কারণেই দীর্ঘদিন ধরে জাকিয়াকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। তাঁর মেয়ে এখন ভালো আছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে গতকাল দুপুরে চিকিৎসক গোলাম কিবরিয়া ডনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘অপারেশনের পর পায়ের ভেতর সুতা থাকতেই পারে। যদি ভেতরে রগ কাটা গিয়ে থাকে, তাহলে তো সেখানে সেলাই দিতে সুতা লাগবেই। আর তা ছাড়া ঘটনাটি অনেক দিন আগের। আমার এই মুহূর্তে স্পষ্ট মনে পড়ছে না। এ বিষয়ে এখনো কেউ কিছু জানায়নি আমাকে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা