kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সাতক্ষীরায় সাদা পোশাকে অপহরণের অভিযোগ

দিনদুপুরে চোখ বেঁধে গাড়িতে তুলে নেওয়া হয়েছে

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিনদুপুরে চোখ বেঁধে গাড়িতে তুলে নেওয়া হয়েছে

মকফুর রহমান

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার দেবনগর গ্রামের মকফুর রহমানের অপহরণ ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন করেছেন তাঁর স্ত্রী মারুফা খাতুন। গতকাল দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মারুফা খাতুন বলেন, ‘আমাদের চোখের সামনে তাঁর (স্বামী) চোখ বেঁধে নিয়ে গেল সাদা পোশাকধারীরা। কারণ জিজ্ঞেস করতেই গালাগাল করল অকথ্য ভাষায়। এরপর এক দিন পার হয়ে গেলেও আমার স্বামীর কোনো সন্ধান পাইনি। তাঁকে খুঁজেছি সাতক্ষীরা থানায় ও গোয়েন্দা পুলিশের অফিসে। সবাই বলেছে, তারা মকফুরের কোনো খবর জানে না।’

মারুফা খাতুন বলেন, তাঁর স্বামী মকফুর কোনো দল করেন না। তিনি মাঠেঘাটে কাজ করেন। বছর পাঁচেক আগেও তাঁকে একবার পুলিশ তুলে নিয়ে গিয়েছিল। দুই মাস পর আদালত থেকে মুক্তি পান তিনি। এবার কে বা কারা তাঁকে তুলে নিয়ে গেল, এর কিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘শনিবার সকাল ৮টার দিকে মকফুর বাড়ির সামনের রাস্তায় পাট শুকানোর কাজ শুরু করছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে দুই যুবক আসে। তারা সেখানে দাঁড়াতেই চলে আসে একটি সাদা রঙের প্রাইভেট কার। এ গাড়িতেই তারা জোর করে টেনে তোলে মকফুরকে। এরই মধ্যে তারা নতুন গামছা দিয়ে তাঁর চোখ বেঁধে ফেলে। আমরা বিষয়টি কী, তা জানতে চাইলে আমাদের গালগাল করে তাড়িয়ে দেয় তারা।’

স্বামীকে ফেরত চেয়ে তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী কোনো অপরাধের সঙ্গে জড়িত থেকে থাকলে তাঁকে পুলিশ ধরে নিয়ে আদালতে হাজির করতেই পারে। কিন্তু থানা বলছে, তারা তাঁকে ধরেনি। গোয়েন্দা পুলিশও বলছে, তাঁকে ধরেনি। অন্যদিকে যারা তাঁকে তুলে নিয়ে গেল, তারাও কোনো পরিচয় দিল না। আমি স্বামীর কোনো খোঁজ না পেয়ে সাতক্ষীরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি। এখন আমি আমার স্বামীকে ফেরত চাই। আমি তাঁকে অক্ষত দেখতে চাই।’ মারুফা খাতুন এ বিষয়ে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে তাঁর মেয়ে তানিয়া ও ননদ মমতাজ বেগম উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা