kalerkantho

ত্রিশালে ডাকাতদের হাতে নৈশপ্রহরী খুন

শেরপুরে ৭০০ টাকার জন্য দিনমজুরকে হত্যা

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেরপুরের নকলায় মাত্র ৭০০ টাকার জন্য দিনমজুরকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। অন্যদিকে ময়মনসিংহের ত্রিশালে ডাকাতদের হাতে খুন হয়েছে নৈশপ্রহরী। বিস্তারিত কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে— 

শেরপুর : পাওনা ৭০০ টাকা চাওয়ার ‘অপরাধে’ দিনমজুর জলিল মিয়াকে আছাড় মেরে হত্যার অভিযোগ উঠেছে জমির মালিকের বিরুদ্ধে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নকলা উপজেলার চরমধুয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে হত্যা মামলা হয়েছে।

অন্যদিকে ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত জমির মালিক মোশারফ হোসেন পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ। এর আগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন নারীসহ চারজনকে চন্দ্রকোনা পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে নকলা থানার ওসি আলমগীর হোসেন শাহ বলেন, আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) : ত্রিশাল উপজেলায় ডাকাতদের হাতে খুন হয়েছেন নৈশপ্রহরী লাল মিয়া। এ সময় আরেক নৈশপ্রহরী তারা মিয়া আহত হন। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে উপজেলার বৈলর বাজারে ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল ভোরে ডাকাতির উদ্দেশ্যে বাজারের ‘কাজী মোটরস’-এর তালা ভাঙছিল ডাকাতরা। এ সময় ডাকাতদের বাধা দিলে তারা রড দিয়ে বাজারের নৈশপ্রহরী তারা মিয়ার মাথা ও কান বরাবর আঘাত করে। তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে ডাকাতরা আরেক নৈশপ্রহরী লাল মিয়াকেও আঘাত করে। এ পরিস্থিতিতে ডাকাতরা তাদের গাড়িতে করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এর আগে তারা আরেক নৈশপ্রহরী জসিমকে তাদের গাড়িতে আটকে রেখে মারধর করে চার-পাঁচ কিলোমিটার দূরে নূরুর দোকান এলাকায় ফেলে চলে যায়। পরে আশপাশের লোকজন তারা মিয়া ও লাল মিয়াকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকালে লাল মিয়ার মৃত্যু হয়।

ত্রিশাল সার্কেলের এএসপি রকিব খান জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে থানায় আনা হয়েছে। আহত তারা মিয়ার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।

মন্তব্য