kalerkantho

পশুর হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি   

৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশুর হাটগুলোতে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। টোল আদায় চার্ট না থাকায় খেয়াল-খুশিমতো নেওয়া হচ্ছে খাজনা। এতে বিড়ম্বনায় পড়েছে সাধারণ ক্রেতা ও বিক্রেতারা।

সরেজমিন হাটে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার কাঠগড়া হাট কর্তৃপক্ষ ইচ্ছেমতো ক্রেতা ও বিক্রেতার কাছ থেকে খাজনা আদায় করছে। এ ছাড়া মীরগঞ্জ ও শোভাগঞ্জ হাটেও আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত খাজনা। সরকারের নির্ধারিত খাজনা আদায় চার্ট না থাকায় তাদের বেঁধে দেওয়া মূল্যে খাজনা দিতে বাধ্য হচ্ছে ক্রেতা ও বিক্রেতারা। জানা গেছে, হাট কর্তৃপক্ষ বিক্রেতার কাছ থেকে ২০০-৩০০ টাকা পর্যন্ত আদায় করছেন। অন্যদিকে ক্রেতাদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ৫০০-৬০০ টাকা। তবে ২ শতাংশ হারে খাজনা আদায়ের নিয়ম থাকলেও তা মানছে না হাট ইজারাদার। ফলে উভয় পক্ষের থেকেই অতিরিক্ত খাজনা আদায় করা হচ্ছে। কিন্তু খাজনা আদায়ের রশিদে কোনো টাকার পরিমাণ উল্লেখ করছে না হাট কর্তৃপক্ষ।

কমল নামের এক গরু বিক্রেতা বলেন, ‘আমি একটি গরু ১৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি। আমার কাছ থেকে ২০০ টাকা খাজনা নেওয়া হয়েছে।’

অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের বিষয়টি স্বীকার করে ইজারাদার সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আমার এই হাট ছাড়াও অনেকেই অতিরিক্ত খাজনা নিচ্ছে।’ সরকারি চার্ট নেই কেন—তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ইউএনও অফিস থেকে কোনো চার্ট দেয়নি। তাই টাঙানো হয়নি।’ এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোলেমান আলী বলেন, ‘কাউকে টোল চার্ট দেওয়া হয়নি। তবে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য