kalerkantho

দুই কৃষকের জমি দখল

নওগাঁ প্রতিনিধি   

৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় দুই দরিদ্র কৃষকের জমি দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার সকালে নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন উপজেলার ছাতনী পূর্বপাড়া গ্রামের কৃষক সামিদুল ইসলাম ও কামরুজ্জামান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সামিদুল ইসলাম জানান, ১৯৯৫ সালে আদমদীঘি উপজেলার হালালিয়াহাট রেলস্টেশনসংলগ্ন ৭৪ শতাংশ জমি তাঁর বাবা মৃত আফজাল হোসেন, চাচা মৃত ইসমাইল হোসেন ও মৃত রিয়াজ উদ্দিন রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বন্দোবস্ত (লিজ) নেন। এর পর থেকে ওই জমির খাজনা পরিশোধ করে তাঁরা সেখানে চাষাবাদ ও মাছ চাষ করতেন। জমিটির মূল বন্দোবস্তকারীরা মারা যাওয়ার পর ওয়ারিশ সূত্রে সামিদুল ও কামরুজ্জামান সেই জমি দখলে রেখে চাষাবাদ করছিলেন। ২০১৪ সালে একই গ্রামের আব্দুল মান্নান নামের এক ব্যক্তির কাছে জমিটি দুই বছরের জন্য বর্গা দেন। কিন্তু চুক্তির মেয়াদ শেষ হলেও ওই বর্গাদার জমির দখল ছাড়তে অস্বীকৃতি জানান এবং ওই জমি তাঁর নিজের বলে দাবি করেন। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও থানায় লিখিত অভিযোগ করলে বিষয়টি তদন্ত করে সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদুল হক মান্নানকে জমিটি মূল মালিকদের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেন। পরে তিনি তাঁদের জমি ছেড়ে দেন। গত এপ্রিলে ওই জমিতে ৫০ হাজার টাকার পোনা মাছ ছাড়েন সামিদুল ও কামরুজ্জামান। পোনা ছাড়ার কিছুদিন পর আব্দুল মান্নান সব মাছ নিধন করে জমিটি আবারও দখল করে নেন।

মন্তব্য