kalerkantho

কলারোয়ায় জমির বিরোধ

যুবকের হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে এক যুবকের দুই হাত ও দুই পায়ের রগ কেটে হত্যা করেছে তাঁর প্রতিপক্ষরা। গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম আলফাজ গাজী (৩০)। তিনি সোনাবাড়িয়া গ্রামের শাহাদাৎ গাজীর ছেলে। নিহতের চাচা ইনছান গাজী বলেন, আলফাজের দাদা কুমুদ্দিন গাজীর ১২ বিঘা জমি ছিল। তাঁর ছিল ছয় ছেলে ও এক মেয়ে। ১৯৯০ সালে মাঠ জরিপের সময় আরেক চাচা গোলাপ গাজী সব জমি তাঁর নামে কৌশলে রেকর্ড করে নেন। পরে ওই জমি বিক্রি করে পাঁচ ছেলেকে মালয়েশিয়ায় পাঠান। বর্তমানে তারা অনেক ধনসম্পদের মালিক। জমি ফিরে পাওয়ার জন্য নিহত আলফাজসহ তাঁর কয়েকজন ভাই বাদী হয়ে আদালতে গোলাপের বিরুদ্ধে মামলা করেন। গোলাপও পাল্টামামলা করেন। পরে পাঁচ বিঘা জমি ফিরে পান। এ নিয়ে এর আগে আলফাজের ভাই শাহাদাৎকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন গোলাপ। চার বছর আগে শাহাদাৎ মারা যান। এরপর মেজো ভাই আশরাফকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। চলতি মাসের প্রথম দিকে সলেমান ও ইসমাইল মোটরসাইকেলচাপা দিয়ে আলফাজকে মেরে ফেলতে চায়। মঙ্গলবার বিকেলে আলফাজের সঙ্গে বিরোধ বাধে গোলাপের ছেলে গণি, ইসমাইল, ফয়সাল ও সলেমানের ছেলে নাজমুলের সঙ্গে। রাত ৯টার দিকে আলফাজ বাড়ির বারান্দায় বসে ছিলেন। এ সময় গণি, ফয়সাল, নাজমুল, ইসমাইলসহ ১০-১২ জন বাড়িতে এসে হামলা করে। তারা আলফাজের ঘাড়ে একটি দায়ের কোপ মারলে তিনি দৌড়ে ঘরের মধ্যে লুকান। সেখান থেকে টেনে-হিঁচড়ে বারান্দায় এনে দুই হাত ও দুই পায়ের রগ কেটে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে চলে যায় হামলাকারীরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আলফাজকে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে রাত ১২টার দিকে মৃত্যু হয়।

 

মন্তব্য