kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

সীমানা জটিলতা

১৯ বছর এক মেয়র

ঝিকরগাছা পৌরসভা

এম আর মাসুদ, ঝিকরগাছা (যশোর)   

১৮ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সীমানাসংক্রান্ত জটিলতায় মামলার অজুহাতে ১৯ বছর ধরে যশোরের ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন হয়নি। অথচ যে তিনটি ইউনিয়নের সঙ্গে সীমানা নিয়ে জটিলতা, সেসব ইউনিয়নের নির্বাচন ঠিকমতোই হচ্ছে। তাই পৌরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি, যত দ্রুত সম্ভব নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হোক।

১৯৯৮ সালের ৪ এপ্রিল উপজেলা সদরের প্রাণকেন্দ্রে ঝিকরগাছা পৌরসভা ঘোষিত হয়। তখন নবগঠিত পৌরসভার প্রশাসকও নিয়োগ করা হয়। ২০০১ সালের ২ এপ্রিল ঝিকরগাছা পৌরসভার প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আর কোনো নির্বাচন হয়নি। সে নির্বাচনে মেয়র (তখন ছিল চেয়ারম্যান) নির্বাচিত হন বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোস্তফা আনোয়ার পাশা (জামাল)। ২০০৬ সালের প্রথম দিকে তৎকালীন ক্ষমতাসীন সরকারের স্থানীয় কিছু বিএনপি নেতা পৌরসভার সীমানা বৃদ্ধি করেন স্থানীয় মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে। এতে সদর ইউনিয়নের মল্লিকপুর, ফারাসাতপুর, পদ্মপুকুর, পানিসারা ইউনিয়নের পুরন্দপুর, কাউরিয়া ও গদখালী ইউনিয়নের বারবাকপুর ও বামনআলী গ্রামের অংশবিশেষ পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হয়। অভিযোগ আছে, এসব অঞ্চল বিএনপির ভোটার অধ্যুষিত হওয়ায় তাঁরা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে এ কাজ করেছিলেন। কিন্তু এসব অঞ্চল প্রত্যন্ত এলাকা হওয়ায় পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত না করতে এলাকাবাসী নানাভাবে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে। শেষমেশ, কাউরিয়া গ্রামের শাহিনুর রহমান, বামনআলী গ্রামের শাহাদৎ হোসেন ও মল্লিকপুর গ্রামের সাইফুজ্জামান ওই এলাকাগুলো পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত না করতে হাইকোর্টে পৃথক তিনটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। আর এতেই আটকে যায় ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন। ফলে ২০০৬ সালের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা স্থগিত করে হাইকোর্ট। এরপর টানা ১৯ বছর পার হলেও পৌরসভার আর কোনো নির্বাচন হয়নি। তাই নাগরিক সেবা ও কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগও রয়েছে পৌরবাসীর।

হাইকোর্টে রিট পিটিশনকারী কাউরিয়া গ্রামের শাহিনুর রহমান বলেন, ‘পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হতে চাই না।’ তা ছাড়া অন্য রিটকারী বামনআলী গ্রামের শাহাদৎ হোসেন মারা গেছেন। পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা কাটাখাল গ্রামের সবজি বিক্রেতা হামিদুল ইসলাম জানান, ১৯ বছর পৌরসভার নির্বাচন না হওয়ায় মেয়র ও কাউন্সিলররা জনগণের জন্য কাজ করেন না।

উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোর্ত্তজা এলাহী টিপু জানান, পৌরসভা কারোর পৈতৃক সম্পত্তি না।

মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জানান, তিনিও পৌরসভার নির্বাচন চান। তবে সেটা পূর্বের সীমানায় হতে হবে।

যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হুসাইন শওকত বলেন, ‘সীমানাসংক্রান্ত জটিলতার মামলা থাকায় ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচনের বিষয়টি আদালতই নিষ্পত্তি করবেন।’

 

মন্তব্য