kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

মধুখালীতে ৪০ দিনে ৩৪ গরু চুরি

আতঙ্কে রাত জেগে পাহারা গ্রামবাসীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলায় গরু চোরের উপদ্রব আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে। গত ৪০ দিনে চুরি হয়েছে অন্তত ৩৪টি গরু। এ ছাড়া একই সময়ে ২৭টি বাসাবাড়িতেও চুরি হয়েছে। কোরবানির ঈদের আগে এভাবে গরু চোরের উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় সাধারণ গৃহস্থ ও খামারিরা উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে। তারা রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে পৌরসভার গোপালপুরে গরু চুরি হয় এবং ওই রাতেই কামারখালী বাজারের এক চাল ব্যবসায়ীর ঘর থেকে ১১১ বস্তা চাল চুরি হয়। এর আগে সোমবার রাতে নওপাড়া ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে গরু চুরি ও পরের রাতে কামারখালী বাজারের তিনটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে। ৬ জুলাই আড়পাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম আড়পাড়া এবং শান্তিপুর গ্রামে দুটি বাড়িতে চারটি গরু চুরি হয়। গত মাসের শেষ সপ্তাহে জাহাপুরে তিনটি বাড়ি থেকে সাতটি গরু চুরি হয়। এভাবে গত ৪০ দিনে ৩৪টি গরু চুরির ঘটনায় গ্রামের মানুষ আতঙ্কিত। সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানদের কাছ থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মধুখালী পৌরসভার প্যানেল মেয়র মির্জা আব্বাস হোসেন চুরির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘গত কয়েক দিনে পৌরসভার ১১টি গরু চুরি হয়েছে। চুরি হওয়া এসব গরুর বাজার মূল্য প্রায় সাড়ে সাত লাখ টাকা।’ মেগচামী ইউনিয়নের গরুর খামারি ইছহাক খন্দকার বলেন, ‘গরু চোরে নিয়ে গেলে আমরা বাঁচব কিভাবে? তাই রাতে খামারের সামনেই বিছানা পেতে শুয়ে থাকি।’

এ ব্যাপারে মধুখালী থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘গরু চুরির বিষয়ে কিছু মামলা ও সাধারণ ডায়েরি হয়েছে থানায়। তবে অনেক ঘটনার পরে থানায় অভিযোগ করা হয় না। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা