kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

তরুণীর শরীরে আগুন

নরসিংদীতে আটক ৩

নরসিংদী প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীতে ফুলন রানী বর্মণের (২০) শরীরে কেরোসিন ঢেলে দুর্বৃত্তদের আগুন দেওয়ার ঘটনার দুদিন পার হলেও প্রকৃত কারণ এখনো উদ্ঘাটিত হয়নি। তবে সন্দেহভাজন হিসেবে তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

গত বৃহস্পতিবার রাতে নরসিংদী শহরের বীরপুর মহল্লায় পার্শ্ববর্তী দোকান থেকে কেক কিনে বাসায় ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে দগ্ধ হন ফুলন। ঘটনাস্থল থেকে কেরোসিনের বোতল, দিয়াশলাইয়ের বাক্স, ওড়না, পোড়া চুলসহ বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে পুলিশ। এ ঘটনায় শুক্রবার ফুলনের বাবা পৌরসভার বীরপুর মহল্লার বর্মণপাড়ার যোগেন্দ্র চন্দ্র বর্মণ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে নরসিংদী সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ এ ঘটনায় জমিসংক্রান্ত বিরোধ, ফুলনকে উত্ত্যক্ত করা, প্রেমঘটিত কারণসহ অন্যান্য বিরোধকে আমলে নিয়ে সামনে এগিয়ে নিচ্ছে তদন্তকাজ। তদন্তকারী কর্মকর্তারা ফুলনের পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, এলাকাবাসীসহ প্রয়োজনীয় সবার সঙ্গে কথা বলেছেন। তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় মোবাইল ফোনের কললিস্ট ধরে একাধিকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করাসহ তথ্য সংগ্রহ করা অব্যাহত রয়েছে।

স্বজনরা জানায়, পুলিশের কাছে আটক হওয়া ফুলনের বড় ভাইয়ের শ্যালক সঞ্জিব রায় দীর্ঘদিন ধরেই ফুলনকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। ঘটনার সঙ্গে তাঁর সম্পৃক্ততা থাকতে পারে বলে ধারণা করছে তারা। বীরপুর মহল্লার বাসিন্দা স্বপ্না রানী দাস বলেন, ‘ফুলন প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। একটি ছেলে তাকে ডিস্টার্ব করত বলে আমরা আগেও শুনেছি।’ একই এলাকার কানন মিয়া বলেন, ‘ফুলনেরই সম্পর্কে আত্মীয় একটি ছেলে তার পেছনে ঘুরঘুর করত এমনটি আমরা শুনেছিলাম। এখন কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে সেটা স্পষ্ট নয়।’

মন্তব্য