kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

বাস থেকে ফেলে পিষে হত্যা

হেলপার ও চালকের ফাঁসি চান স্ত্রী

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাড়া নিয়ে তর্কের জেরে বাস থেকে ফেলে পিষে মারা সালাহ উদ্দিনের (৪৫) স্ত্রী আলম এশিয়া বাসের চালক ও হেলপারের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘের বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গত রবিবার এ ঘটনা ঘটে। সালাহ উদ্দিনকে পিষে মারার পর বেশ কিছুটা দূরে গিয়ে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয় তাঁর স্ত্রী পারুল আক্তারকে। আহত হয়েছেন তিনিও। পুরো পরিবারে এখন শোকের আবহ। ঘটনার দিনই গাড়ি জব্দ করে পুলিশ। পরে চালক রোকন উদ্দিন ও হেলপারকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

নিহত সালাউদ্দিন আহমেদ (৪৬) পুরান ঢাকার আলুবাজারের মৃত শাহাবউদ্দিনের ছেলে। তিনি গাজীপুরের বাঘের বাজার এলাকায় স্ত্রী পারুল আক্তারসহ (৩৮) ভাড়া থাকতেন। তিনি স্থানীয় পলমল গ্রুপের স্কটেক্স অ্যাপারেল কারখানার বাসচালক ছিলেন।

শ্বশুরবাড়ি ময়মনসিংহের ফুলপুর থেকে গত রবিবার সকালে আলম-এশিয়া পরিবহনের একটি বাসে কর্মস্থল গাজীপুরের বাঘের বাজারে ফিরছিলেন তাঁরা। এ সময় ভাড়া নিয়ে তাঁদের মধ্যে বচসা হয়। বাসটি বাঘের বাজারে পৌঁছলে কন্ডাক্টর ও হেলপার সালাউদ্দিনকে লাথি মেরে নিচে রাস্তায় ফেলে দেয়। একপর্যায়ে চালক বাসটি সালাহ উদ্দিনের ওপর দিয়ে চালিয়ে দেয়। এ সময় অন্য যাত্রীরা প্রতিবাদ করলে বেশ কিছুদূর গিয়ে গতি কমিয়ে পারুলকেও ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দিয়ে বাসটি পালিয়ে যায়।

গতকাল নিহত সালাউদ্দিনের বাড়ি ফুলপুরের শিলপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ীতে আত্মীয়-স্বজন ও স্থানীয় এলাকাবাসী মিলে মেজবানের আয়োজন করেছে। ছোট একটি টিনশেড বাড়িতে বিলাপ করছেন পারুল। স্বামীর হত্যাকারীদের বিচার চান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা