kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

আ. লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

আহত ৩০

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আ. লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

মাদারীপুর সদরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে নারীসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। গতকাল বুধবার সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মধ্য গাছবাড়িয়া এলাকায় দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ পাঁচ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। ১১ জনকে আটক করেছে। এলাকাবাসী যেকোনো সময় আবারও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে। অন্যদিকে ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে।

আহত, হাসপাতাল, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকালে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দের সমর্থক মোসলেম আকন ও লাভলু তালুকদারের লোকজন মধ্য গাছবাড়িয়া এলাকায় পোস্টার লাগাতে যায়। একই সময় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, সাবেক নৌপরিবহনমন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য (এমপি) শাজাহান খানের ছোট ভাই অ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান কালু খানের সমর্থক লাল মিয়া মাতুব্বর ও শহীদ মাতুব্বরের লোকজনও পোস্টার লাগাতে যায়। এ সময় পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এতে উভয় পক্ষের নারীসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। তাদের সদর হাসপাতালে ভর্তিসহ প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী ওবায়দুরের নির্বাচনী প্রতিনিধি, তাঁর ছেলে আবেদুর রহমান খান অভিযোগ করেন, ‘আমাদের সমর্থকরা আনারসের পোস্টার টাঙানোর সময় নৌকার সমর্থকরা অতর্কিতে হামলা চালিয়ে নেতাকর্মীদের আহত করেছে।’

অন্যদিকে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পরিমল কুণ্ডু বলেন, ‘যারা নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে দলীয়ভাবে আমরা তাদের আইনের আওতায় আনার দাবি করছি।’

এ ব্যাপারে জেলার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ১১ জনকে আটক করা হয়েছে।’

 

মন্তব্য