kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

তাঁতী লীগ নেতার ভয়ে ২০ পরিবার পুরুষশূন্য!

চিতলমারী (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তাঁতী লীগের এক নেতার ভয়ে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার ২০টি পরিবার দেড় মাস ধরে পুরুষশূন্য রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, ওই সব পরিবারের নারীরা রাতের বেলায় থাকছে পুলিশ প্রহরায় এবং শিশুরা রয়েছে আতঙ্কে। আর শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে যেতে পারছে না। তাদের লেখাপড়া বন্ধ হবার উপক্রম হয়েছে। চিতলমারী সদর ইউনিয়ন তাঁতী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম ওরফে ওসমান হাওলাদারের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী দুই নারী। সোমবার সকাল ১১টায় চিতলমারী উপজেলা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তাঁরা এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে খিলিগাতী গ্রামের শওকাত ফকিরের স্ত্রী ইয়াসমিন বেগম বলেন, ‘প্রায় দেড় মাস আগে পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে শফিকুল ইসলাম ওরফে ওসমান হাওলাদারের ভাতিজা রুবেল হাওলাদারের সঙ্গে আমার স্বামীর মারামারি হয়। এতে উভয় পক্ষের লোকজনই আহত হয়। এ ঘটনায় আহত রুবেল মারা যায়। পরে ওসমান হাওলাদারের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন আমাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর, লুটপাট ও মামলা করে। ২০টি পরিবারের চিংড়ি ঘের থেকে প্রায় দুই কোটি টাকার মাছ লুট করে। এখন তাদের হামলার ভয়ে পরিবারগুলো পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। ছেলেমেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না।’

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে তাঁতী লীগ নেতা ওসমান হাওলাদার বলেন, ‘রুবেল হাওলাদার হত্যা মামলা থেকে মুক্তি পেতে ওরা সংবাদ সম্মেলনসহ নানা তালবাহানা করছে।’

 

মন্তব্য